‌শারদ সপ্তাহে আবেগ বনাম যুক্তির লড়াই

পার্থসারথি গুহ

এতদিন 10,200-10,400-র মধ্যে সীমায়িত ছিল নিফটির গতিপথ। এখন সে জায়গাটার পরিধি বেড়েছে। 10,500 হয়ে উঠল নতুন রেজিস্ট্যান্স। এতদিন সাপোর্ট 10.200 হলেও এদিনের উত্থান সেই তাকে কিছুটা হলেও ওপরের দিকে টানবে। সেক্ষেত্রে 10,300 হবে খুব ভাল ভিত। দীপাবলী আর মুহুরতের ভিত্তিতে বিচার করলে নিফটি আরও একবার 11 হাজারের কাছাকাছি চলে যেতেই পারে। কিন্তু, এই মুহূর্তে তার থেকে বেশি ওপরে ওঠা নিফটির পক্ষে অসম্ভব। একই কথা প্রযোজ্য সেনসেক্সের ক্ষেত্রেও।

‌সেই অ্যাসিড টেস্টের ওপর অনেক কিছু নির্ভরশীল। যদি এই সেমিফাইনাল রাউন্ড ঠিকমতো উতরে যেতে পারে কেন্দ্রের শাসক দল, তখন কিন্তু শেয়ার বাজারের চাকা ওপর দিকে ঘুরে যাবে। উলটোটা হলে অর্থবাজারের কঙ্কাল বেরিয়ে আসার সম্ভাবনা প্রবল। তার মাঝামাঝি এই মাস দুই হল খুব গুরুত্বপূর্ণ সময়। যে সময়টা দেখার শুধু নয়, মেপে নেওয়ারও বটে।

অক্টোবর মাসটা বাঙালি তথা ভারতবাসীর কাছে একটা উৎসব মরশুম শুরুর জানান দেয়। বস্তুত, সোমবার থেকে যে সপ্তাহ শুরু হবে তা অন্তত একটা ইতিবাচক বার্তা বয়ে আনতে পারে ভারতীয় শেয়ার বাজারের লগ্নিকারীদের কাছে। যে নিফটি দিনের একটা সময় 10,100 এর কাছে চলে এসেছিল তাই নতুন করে স্পর্ধা দেখাচ্ছে 10,700 কে ছোঁয়ার। সেনসেক্সও 37 হাজারকে একবার চ্যালেঞ্জ দিতে চাইছে। তবে বিশেষজ্ঞরা এখনই উচ্ছ্বাসে ভেসে যেতে চাইছেন না, বা আহ্লাদে আটখানা হচ্ছেন না। তাঁদের মতে ধাপে ধাপে কতগুলি রেজিস্ট্যান্স অতিক্রম করতে না পারলে কিছুতেই সূচকের মোড় ঘুরবে না। আপাতত 11 হাজারকে তাই পাখির চোখ করতে চাইছেন শেয়ার বিশেষজ্ঞরা।