‘নমো অ্যাপে’ ভোটের চাঁদা তুলছে বিজেপি, কংগ্রেস বলছে, এটা নতুন নাটক

এসবিবি : লোকসভা নির্বাচন দরজায় কড়া নাড়ছে। ভোটে লড়তে বিপুল খরচ। সম্ভবত অত টাকা নেই কেন্দ্রের শাসক দল বিজেপি’র সিন্দুকে। তাই
ধনতেরাসের দিন থেকে ভোটের জন্য চাঁদা তোলা শুরু করল বিজেপি। এই টাকা তোলা হচ্ছে ‘নমো’ অ্যাপ-এর মাধ্যমে। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির কড়া নির্দেশ, আগামী 15 দিন দেশজুড়ে বিজেপিকে এই বিশেষ অভিযান চালাতে হবে। ‘নমো’ অ্যাপ-এর মাধ্যমে 5 টাকা থেকে এক হাজার টাকা পর্যন্ত চাঁদা তোলা যাবে। প্রযুক্তির মাধ্যমে চাঁদা তোলা হলেও এই চাঁদা আদায় করতে মানুষের কাছে যেতে হবে দলের কর্মীদের। নিজের এলাকায় মানুষকে এক জায়গায় ডেকে দলকে চাঁদা দেওয়ার আবেদন করতে হবে স্থানীয় নেতাদের।
কমিউনিস্ট পার্টির নেতাকর্মীরা প্রায় চল্লিশ বছর আগে বাড়ি বাড়ি ঘুরে চাঁদা তুলতেন। বিজেপি এখন এই পথের পথিক হচ্ছে। ওদিকে, বিরোধীদের কটাক্ষ, এসব আরেক নাটক। মোদির দু’একজন “বন্ধু”-ই ভোটের খরচা দিয়ে দিতে পারে। তাছাড়া,
কাঁড়ি কাঁড়ি টাকা রয়েছে বিজেপির। তাদের আবার টাকা তোলার কী দরকার?

বিজেপি’র বক্তব্য, আসলে এটাও ভোটের কৌশল। টাকার থেকেও আবেগকে উস্কে দেওয়াটাই আসল লক্ষ্য। যে সব মানুষ গত কয়েক বছরে প্রতিশ্রুতি ভঙ্গের জন্য বিজেপি থেকে দূরে চলে গিয়েছেন, তাঁদের আবার ফিরিয়ে আনার চেষ্টা। যিনি টাকা দেবেন, বিজেপির প্রতি আবেগটা থাকবে। এদিকে, কংগ্রেস এই কৌশলের পিছনে বিজেপির একটি গোপন উদ্দেশ্যও দেখছে। সেটি হল, ‘নমো’ অ্যাপ-এ টাকা দিলে কোনও ব্যক্তির নাম, মোবাইল নম্বর চলে আসবে। তার ভিত্তিতে বিজেপি একটি ‘ডেটা-ব্যাঙ্ক’ তৈরি করবে। সেই তথ্য অন্য কাজেও লাগাতে পারে।