ছয় ছক্কার হাফ সেঞ্চুরি পূর্তির অনুষ্ঠান ‘না’ করে দিলেন স্যার গ্যারি

এসবিবি : একে কী বলবেন? ছয় ছক্কার হাফ সেঞ্চুরি? ঘটনা কিন্তু তাই। পৃথিবীর সর্বকালের সেরা অলরাউন্ডার স্যার গ্যারফিল্ড সোবার্স। ঠিক পঞ্চাশ বছর আগে 1968 -র 31 অগাস্ট গ্ল্যামারগনের ম্যালকম ন্যাশকে 6বার বাউন্ডারির বাইরে উড়িয়ে প্রথম বিশ্বরেকর্ড। খেলছিলেন নট্যিংহ্যামশায়ারের বিরুদ্ধে। তাকে স্মরণীয় করে রাখতে ইংল্যান্ড বড়সড় একটা অনুষ্ঠানের আয়োজনের পরিকল্পনা করেছিল। প্রথম ছয় ছক্কার মালিককে বার্বাডোজ থেকে উড়িয়ে আনার পরিকল্পনাও ছিল কিন্তু তাতে আপাতত জল ঢেলে দিয়েছেন স্বয়ং সোবার্স। তাঁর সাফ কথা, বয়স আমার 82। হাঁটুর ব্যথায় ভুগছি। এই অবস্থায় যেতে পারব না। আর বারবার এই নিয়ে আলোচনা বা অনুষ্ঠান মানে ন্যাশকেও বিব্রত করা। যেন ও কত খারাপ বোলার ছিল সেটা প্রমাণ করা। তবে নস্টালজিক গ্যারি বলেছেন, আমাদের দ্রুত রান তোলার দরকার ছিল। তাই চালিয়ে খেলছিলাম। তিন ছক্কা মারার পর নেশায় পেয়ে গিয়েছিল। পাঁচ ছক্কায় আউট হয়ে গিয়েছিলাম। রজার ডেভিস ধরেও বাউন্ডারি লাইন ছুঁয়ে ফেলেছিল। শেষ বলে জোরের উপর ফেলবে ভেবেই তৈরি ছিলাম। তবে আমার পর শাস্ত্রী, যুবরাজ, ম্যাসকারেনহাসও ছয় ছক্কা মেরেছে। আমারটা প্রথম বলেই এত আলোচনা।

আর 73 বছরের ম্যালকম ন্যাশ অকপটে বলছেন, আমি সাধারণ এক খেলোয়াড়। আমাকে কে মনে রাখত বলুন তো! স্যার গ্যারির সেদিনের কীর্তির জন্য মনে রেখেছে। আমার কোনও অনুশোচনা নেই। ওই দিনটা গ্যারির ছিল। পঞ্চম বলে আউট হতেন ক্যাচ বাউন্ডারি লাইনের মধ্যে ধরে রাখলেই। শেষ বলে চেষ্টা করেছিলাম। কিন্তু আগাম আন্দাজ করে সব হিসাব গণ্ডগোল করে দিলেন।

50 বছর আগের ঘটনা হলেও দুজনের স্মৃতি বলে দিচ্ছে প্রতিটি বল, সেদিনের ওই সময় তাঁদের স্মৃতির ফ্ল্যাশব্যাকে আজও অমলিন।