একমাত্র সন্তানের অঙ্গ দান করে নজির গড়লেন বাবা মা

এসবিবি: ফের অঙ্গপ্রতিস্থাপনে নজির গড়ল মহানগর। ব্রেন ডেথ হয়ে যাওয়া তরুনীর হার্ট, দুটি কিডনি প্রতিস্থাপন করা হল তিন জনের দেহে। আই ব্যাংকে রাখা হয়েছে চোখ। বুধবার রাতে গ্রীন করিডোর করে দেবলিনা ঘোষ এর অঙ্গ গুলি শহরের বিভিন্ন হাসপাতালে নিয়ে যায় কলকাতা পুলিশ। এদিন রাতে ঢাকুরিয়ার আমরি হাসপাতালে মৃত্যু হয় সোনারপুর দক্ষিণ পাড়ার বাসিন্দা 25 বছরের দেবলিনা ঘোষ এর। স্পেশাল চাইল্ড হিসেবে বড় হয় দেবলীনা। পরিবারের তরফে জানানো হয়েছে মাত্র আড়াই মাস বয়সে মাথায় জল জমে যায় তার। মাথায় অস্ত্রপচার করে বসানো হয় সন টিউব। সমস্যা থেকে যায় তারপরেও। শনিবার ফের মাথা যন্ত্রণা শুরু হয় তার। বাবার কোলে অজ্ঞান হয়ে যায় দেবলীনা। রবিবার তাকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। বুধবার রাতে ব্রেন ডেথ হয়েছে বলে ঘোষণা করে চিকিৎসক। দেবলীনার বাবা অরুণ ঘোষ একটি বেসরকারি সংস্থার কর্মী। মা কৃষ্ণা ঘোষ গৃহবধূ। তারা সিদ্ধান্ত নেন তাদের একমাত্র সন্তান বেঁচে থাকুক আরো অনেকের মধ্যে। তাই সন্তান হারানোর শোকের মধ্যেও অঙ্গপ্রতিস্থাপনে রাজি হন। দেবলীনা দুটি কিডনি লিভার এবং চোখ শহরের বিভিন্ন হাসপাতালে পৌঁছে দেওয়ার উদ্যোগ নেয় কলকাতা পুলিশ। দেবলীনার হার্ট পান বহরমপুরে তনয়া পন্ডিত। একটি কিডনি প্রতিস্থাপন করা হয় হুগলির ধনেখালির বাসিন্দা বছর 45 এর অনিতা ঘোষের দেহে। অপর কিডনি পান হুগলির পাণ্ডুয়ার তৃতীয় বর্ষের ছাত্রী কেয়া দাঁ। লিভার প্রতিস্থাপন করার কথা ছিল বারুইপুরের বাসিন্দা জয় প্রতিম ঘোষ এর শরীরে। কিন্তু লিভার নষ্ট হয়ে যায় তা প্রতিস্থাপন করা সম্ভব হয়নি।