19শেই কী উর্জিত দায়িত্ব ছাড়ছেন?

এসবিবি, নয়াদিল্লি : প্রাক্তনীর কথাই কী শেষ পর্যন্ত মিলে যেতে চলেছে! বুধবারই রিজার্ভ ব্যাঙ্কের প্রাক্তন গভর্নর তথা দেশের প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী মনমোহন সিং বলেছিলেন, অর্থমন্ত্রীর সঙ্গে রিজার্ভ ব্যাঙ্কের গভর্নরের এই চাপান-উতোর ঠিক নয়। গভর্নর কখনই অর্থমন্ত্রীর কথা অমান্য করতে পারেন না। অবশ্য করতে পারেন, যদি তাঁর চাকরি খোয়ানোর ইচ্ছা থাকে।

দিল্লির অলিন্দের খবর, আরবিআই গভর্নর উর্জিত প্যাটেল 19 নভেম্বর দায়িত্ব ছাড়ছেন। ওই দিনই কেন্দ্রীয় ব্যাঙ্কের বোর্ড মিটিং রয়েছে। আর রঘুরাজন থেকে শুরু হয়েছিল আরবিবাই গভর্নরের সঙ্গে সরকারের দ্বৈরথ। উর্জিত প্যাটেল আসার পরেও অবস্থা বদলায়নি। মাঝে ডেপুটি গভর্নর বিরল আচার্য আরবিআইয়ের ক্ষমতা ছেঁটে নয়া সংস্থা পিবিআই তৈরি প্রসঙ্গে সরাসরি বলেন, কেন্দ্র তাঁদের কাজে হস্তক্ষেপ করছে। তারপর উর্জিতের সঙ্গে বিবাদ শুরু হয় অর্থমন্ত্রী জেটলির। তাঁর অভিযোগ, রিজার্ভ ব্যাঙ্কের ভাঁড়ারে রয়েছে 9.59 লক্ষ কোটি টাকা। এই অর্থের এক-তৃতীয়াংশ অর্থ চেয়েছে কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রক। এয়ার ইন্ডিয়ার বিলগ্নিকরণ ধাক্কা খেয়েছে। অন্য সরকারি সংস্থার বিলগ্নিকরণ করে সেখান থেকে ঘাটতি না মিটিয়ে রিজার্ভ ব্যাঙ্ক থেকে টাকা নিয়ে ঘাটতি মেটাতে চাইছে কেন্দ্র। বিরোধ এখানেই। সেই বিরোধ প্রকাশ্যে আসার পর দুই পক্ষই অস্বস্তিতে। উর্জিতের উপর চাপ বাড়ছিল। ফলে এখন 19-এর দিকেই সকলের লক্ষ্য।