আসিয়া কোথায়? পাকিস্তানের অন্দরে তোলপাড়

এসবিবি: পাক সেনা বিমানে নিরুদ্দেশ গন্তব্যে পাঠানো হয়েছে আসিয়া বিবি কে। সরকারের তরফে জানতে চাওয়া হয়নি আসিয়ার ঠিকানা। তবে বলা হয়েছে মুলতান জেল থেকে বিশেষ বিমানে আসিয়া বিবি কে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। তার দেশ থেকে বেরিয়ে যাবার খবরটি সঠিক নয়। পাক বিদেশ মন্ত্রকের এই বিবৃতির পরই প্রশ্নের ঝড় ওঠে । কোথায় এই সংখ্যালঘু মহিলা? উত্তপ্ত পরিস্থিতির কথা চিন্তা করেই সরকার চুপ করে রয়েছে। ধর্ম অবমাননা বা ব্লাসফেমি আইনের বলে এতদিন মুলতান জেলে বন্দি ছিলেন খ্রিষ্টান মহিলা আসিয়া বিবি। তাকে ফাঁসির সাজা কমিয়ে দেওয়া হয় পাকিস্তানের নতুন সরকার আসতেই। সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশে সরকার ও প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের বিরুদ্ধে টানা জমায়েত ও বিক্ষোভে অচল হয়ে পড়ে পাকিস্তান।

পাকিস্তানপন্থি ইসলামিক সংগঠনগুলির একটাই দাবি ফাঁসি দেওয়া হোক আসিয়াকে। 2009 সালে ধর্ম অবমাননার অভিযোগ আনা হয় আসিয়ার বিরুদ্ধে। 2010 সালের ডিসেম্বরে নিম্ন আদালতের আসিয়া বিবি মৃত্যুদণ্ডের আদেশ দেওয়া হয়। 2015 সালে এই রায়ের বিরুদ্ধে সুপ্রিম কোর্টে আপিল করেন আসিয়া। সেই মামলায় গত 31 অক্টোবর মুক্তি দেয় পাক সর্বোচ্চ আদালত। পরিস্থিতি অনুকূলে নেই বুঝে আসিয়া কে গোপনে বেনজির ভুট্টো আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে আনা হয়।