বিতর্কিত 6 ডিসেম্বরে মিছিলের জটে দমবন্ধ শহরের

এসবিবি: কোচবিহারের সিতাই এলাকায় রাজ্য বিজেপি সভাপতি দিলীপ ঘোষের গাড়িতে হামলার প্রতিবাদে বিজেপি কর্মীরা কলকাতার বিজেপি অফিসের সামনে, ব্যানার এবং পোস্টার নিয়ে বিক্ষোভ দেখাল।এর ফলে বেশ কিছুক্ষণের জন্য সেন্ট্রাল এভিনিউতে যানযট তৈরি হয়।

অন্যদিকে, উত্তপ্ত হয়ে উঠল মধ্য কলকাতার মৌলালি এলাকা। যার জেরে ছড়াল উত্তেজনা। তার আগে মহাজাতি সদনের সামনে কয়েক হাজার সমর্থককে জড়ো করে প্রথমে সভা করে সিপিএম। সেখানে সূর্যকান্ত মিশ্র, বিমান বসু, মহম্মদ সেলিম সহ তাবড় বাম নেতারা বক্তব্য রাখেন। অযোধ্যার বাবরি মসজিদ ধ্বংস উপলক্ষ্যে মিছিলের আয়োজন করে বামেরা। দুপুরের দিকে শুরু হয় সেই মিছিল। বামেদের মিছিলে অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা নিয়েছিল সিপিএম-এর ছাত্র সংগঠন এসএফআই।দুপুরে বামেদের মিছিল যখন মৌলালি পৌঁছায় সেই সময় তৃণমূল যুব কংগ্রেসের কর্মীরা একটি কর্মসূচিতে যোগ দিতে যাচ্ছিলেন। মৌলালির কাছে দুই দলের কর্মীরা মুখোমুখি হওয়ার পরই শুরু হয় বাদানুবাদ যা ক্রমশ জটিল আকার ধারণ করে।

এরই পাশাপাশি, বেলা 11টা নাগাদ পার্ক সার্কাস থেকে একটি মিছিল বের করেছে আসাউদ্দিন ওয়েসি’র সংগঠন মজলিস-ই-ইত্তেহাদুল মুসলিমিনের রাজ্য শাখা। তারা সিআইটি রোড-মৌলালি হয়ে মিছিল নিয়ে যায় ধর্মতলা পর্যন্ত। প্রায় একসময়ে শিয়ালদহ ও হাওড়া থেকে দু’টি বড় মিছিল করে সংবিধান বাঁচাও সমিতি। সংখ্যালঘু যুব ফেডারেশন, আম্বেদকর মিশন, ইমাম-মোয়াজ্জিন কাউন্সিল সহ বেশ কিছু সংগঠন যৌথভাবে এই মঞ্চের ব্যানারে মিছিল করে।