কুণাল ঘোষের রবিবার : গ্যালিফ স্ট্রিটের হাটে

অনেকদিন পর। রবিবার সকালে। একটি প্রিয় জায়গায়।
গ্যালিফ স্ট্রিট পশুপাখির হাট। পোশাকি নাম বাগবাজার শখের হাট ব্যবসায়ী কল্যাণ সমিতি।
গাছ, রঙিন মাছ, কুকুর, খরগোশ ইত্যাদি। সোজা কথায় পোষ্যের হাট।

না। আজ আমার কিছু কেনার ছিল না। আগে যেমন মাঝেমধ্যেই ঘুরতাম, খানিকটা যেন সেরকমই।
পরিবেশ,মন ভাল রাখতে এই পোষ্যদের ভূমিকা অসাধারণ। এরা পরম আপনজন।

এই হাট অভিনব। সারা বাংলা কেন, সারা দেশে এমন হাট আর আছে কিনা বলা কঠিন। উত্তর কলকাতার ঐতিহ্য।
এই ব্যবসার সঙ্গে বহু পরিবার জড়িত। প্রত্যক্ষ, পরোক্ষ প্রায় পাঁচ লক্ষ পরিবারের যোগ। আর যাঁরা ক্রেতা, তাদের সংখ্যা বিপুল এবং ক্রমশঃ বাড়ছে।

ব্যবসায়ীদের সংগঠনটিও ভাল কাজ করছে। পরিকাঠামো মজবুত। ক্রেতা সুরক্ষাতেও নজর। 12 অগাস্ট তারা রক্তদান শিবিরসহ বেশ কিছু ভালো কর্মসূচি নিচ্ছে। এ বিষয়ে পশুপ্রেমী কিছু সংগঠনের কিছু ভিন্ন বক্তব্য আছে। সেটাও জরুরি। পশু বা প্রাণীদের কষ্ট দেওয়া ঠিক নয়। আমিও মানি। কিন্তু যাঁরা পোষেন, বাড়িতে রাখেন, তাঁরাও তো পশুপ্রেমী। পোষ্য তাঁদের কাছে সন্তানসম। তাঁরা যত্নেই রাখেন। ভালবাসেন।

মূলত এই ভালবাসার টানকে ভিত্তি করেই প্রাণবন্ত চেহারায় প্রতি রবিবার হাজির হচ্ছে এই পোষ্যের হাট।
আজ সকালটা সেখানেই কাটল। পরিচিত ব্যবসায়ী বন্ধুদের সঙ্গে আড্ডা। রোদ্দুর আর হাল্কা বৃষ্টির মধ্যেই ঘোরা।
আপনারাও এক রবিবার সকালে এসে দেখতে পারেন।
এ এক অন্য জগত।
এক অন্য ভালোবাসার টান।