ইউটিউব দেখে সন্তান প্রসবের চেষ্টা, মৃত্যু মহিলার

এসবিবি:  ‘থ্রি ইডিয়টস’ সিনেমার কথা মনে আছে নিশ্চয়ই। করিনা অর্থাৎ নায়িকার দিদির সন্তান প্রসব করিয়েছিলেন ইঞ্জিনিয়ারিং পড়ুয়ারা। টর্চ, ভ্যাকুয়াম ক্লিনার, ওজন মাপার যন্ত্র-সহ আরও কী কী সব ব্যবহার করে প্রসব করানো হয়েছিল। কম্পিউটারের অন্য প্রান্ত থেকে পড়ুয়াদের কাজ করার নির্দেশ দিয়ে চলেছিলেন নায়িকা করিনা কপূর। এবার যেন সেই ঘটনারই ছোঁয়া দেখা গেল তামিলনাড়ুতে।  ইউটিউবে ভিডিও দেখে সন্তান প্রসব করাতে গিয়ে ঘটল এক মর্মান্তিক ঘটনা।

তামিলনাড়ুর কোয়েম্বাটুরের বাসিন্দা কার্তিকায়ন ও কৃতিগা নামে এক দম্পতি বাড়িতে সন্তান জন্ম দেওয়ার কথা ভাবেন। সোমবার রাতে ইউটিউব দেখে স্ত্রীর প্রসব করাতে যান স্বামী কার্তিকায়ন। সেই সময়ে প্রবল যন্ত্রণা ওঠে কৃতিগার। এর পরেই বিপাকে পড়ে অ্যাম্বুলেন্সে খবর দেন কার্তিকায়ন। অ্যাম্বুলেন্সে করে নিয়ে যাওয়ার পথেই মৃত্যু হয় কৃতিগার। তবে সুস্থ আছে নবজাতক।

ঘটনায় অভিযুক্ত স্বামী কার্তিকেয়নকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। এছাড়াও ওই দম্পতির এক আত্মীয়কে আটক করে জিজ্ঞাসাবাদ করছে পুলিশ। মূলত অতিরিক্ত রক্তক্ষরণের জেরেই এই মৃত্যু বলে জানা গিয়েছে।

কিন্তু কেন এমন করলেন কার্তিকেয়ন-কৃতিগা?  জানা গিয়েছে, পরিবারের সদস্যদের পাশাপাশি কার্তিকেয়ন-কৃতিগাও স্বাভাবিক প্রসবে বিশ্বাস করতেন। তাঁদের তিন বছরের একটি কন্যাসন্তান রয়েছে। তারও জন্ম হয়েছে বাড়িতেই। কৃতিগা দ্বিতীয় সন্তান গর্ভে ধরার কিছুদিন আগেই মারা যান কার্তিকেয়নের মা থাঙ্গাভেলু। দম্পতির পাশাপাশি পরিবারেরও বিশ্বাস ছিল, কৃতিগার গর্ভে নবজন্ম হবে থাঙ্গাভেলুর। পাশাপাশি তাঁরা সবাই স্বাভাবিক ও বাড়িতে প্রসবে বিশ্বাসী ছিলেন। ঘটনায় স্বতঃপ্রণোদিত মামলা দায়ের করে তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ। গ্রেফতার করা হয়েছে কার্তিকেয়নকে।