ভারতের চাই 84 রান, ইংরেজদের চাই বিরাটের উইকেট

এসবিবি : হাতে গোটা দু’দিন। সঙ্গে পাঁচ উইকেট। ক্রিজে বিরাট দায়িত্ব কাঁধে নিয়ে অধিনায়ক কোহলি।

ক্রিকেট বিশেষজ্ঞদের একটা বড় অংশ মনে করছেন, খুব বড় অঘটন না ঘটলে এ ম্যাচ বের করে নেবে শাস্ত্রীর দল। বিশেষজ্ঞদের আর একটা অংশ কিন্তু সাফ বলছেন, চতুর্থ উইকেটে বার্মিংহামের উইকেট খুব সহজ হবে না। দাপট আরও বাড়বে ব্রিটিশ বোলারদের।

দ্বিতীয় ইনিংসে ইংরেজরা এক উইকেটের বিনিময়ে নয় রান সঙ্গে নিয়ে তৃতীয় দিনের খেলা শুরু করে। তবে ইশান্ত-অশ্বিনদের দাপটে 180 রানেই মুখ থুবড়ে পরে ইংলিশ ইনিংস। ইশান্ত শর্মা নেন পাঁচ উইকেট। রবিচন্দ্রন অশ্বিনের ঝুলিতে তিনটি উইকেট। আর দু’উইকেট নেন উমেশ যাদব। দ্বিতীয় দিনের শেষলগ্নে কুক শূন্য রানে ফেরার পরে তৃতীয় দিনের শুরু থেকেই ব্যাটিং বিপর্যয়ের মুখোমুখি হয় ইংরেজরা। সর্বোচ্চ 63 রান করে যান কুরান। 28 রান করেন বেয়ারস্টো। 20 রান করে প্যাভিলিয়নে ফেরেন মালান। বাকিরা কেউই 20-র উপরে উঠতে পারেননি। 180 রানে ইংল্যান্ডের দ্বিতীয় ইনিংস শেষ হওয়ার অর্থ – ভারতকে জয়ের জন্য 194 রান করতে হবে।

শুক্রবার চতুর্থ ইনিংসে ব্যাট করতে নেমে শুরু থেকেই নড়বড়ে লাগে ভারতীয় ব্যাটিং লাইন-আপকে। দুই ওপেনার মুরলি বিজয় ও শিখর ধাওয়ান যথাক্রমে ছয় ও 13 রান করে প্যাভিলিয়নের পথ ধরেন। এরপরে তৃতীয় উইকেটটি পড়ে যখন দলের রান মাত্র 46, ফিরে যান রাহুল। মাত্র 13 রান করে। চার নম্বরে নেমে দিনের শেষপর্যন্ত 43 রানে অপরাজিত বিরাট কোহলি। এদিন মাত্র দু’রানে আউট হয়ে যান রাহানে। 13 রান করে যান অশ্বিন। দিনের শেষে 18 রান করে ক্রিজে কার্তিকও।

প্রথম ইনিংসে বিরাটের সেঞ্চুরির ফলেই একটা ভদ্র-সভ্য জায়গায় পৌঁছতে পেরেছে টিম ইন্ডিয়া। দ্বিতীয় ইনিংসেও ফের ভরসা সেই কোহলিই। চতুর্থ দিন ভারত অধিনায়ক ‘হিট’ তো জয় ভারতের। তবে সঙ্গতগুলিও ঠিকঠাক হওয়া প্রয়োজন।