বিপক্ষের ভারী নামগুলি ভাবাচ্ছে বাগানকে

এসবিবি স্পোর্টস : আজ শনিবার পাঠচক্রের বিরুদ্ধে ম্যাচ দিয়ে কলকাতা লিগে অভিযান শুরু করছে মোহনবাগান। নিজেদের মাঠে এই ম্যাচে শুরু থেকেই আক্রমণাত্মক ফুটবল খেলবে দল, বলছেন সবুজ-মেরুন কোচ শঙ্করলাল চক্রবর্তী। তবে বিপক্ষকে হাল্কা ভাবে নিতে নারাজ তিনি। বরং সমীহই করছেন পাঠচক্রকে।

প্রথম ম্যাচে দিপান্ডা ডিকাকে প্রথম একাদশে রাখছেন না বাগান কোচ। কারণ আরও কয়েকটা দিন দলের সঙ্গে অনুশীলনের পরেই ক্যামেরুনের এই স্ট্রাইকারকে ব্যবহার করতে চাইছেন শঙ্করলাল। বাগান কোচের কথা অনুযায়ী, “দেশে ট্রেনিংয়ের মধ্যেই ছিল ডিকা। গত মরসুমে মহমেডানের হয়ে খেলার সময়ে ওঁর যে ফিটনেস ছিল তার থেকে বেশিই ফিট মনে হচ্ছে ওকে।” তবু প্রথম ম্যাচ থেকেই ডিকাকে খেলাতে নারাজ বাগান কোচ। এদিকে ডিকা না খেললেও পাঠচক্রের বিরুদ্ধে বাকি দুই বিদেশি কিংসলে ও হেনরিকে পাঠচক্রের বিরুদ্ধে দেখা যাবে মেরিনার্সদের জার্সিতে।

মিনার্ভার থেকে ছাড়পত্র না মেলায় সুখদেব সিংকে সই করাতে পারেনি মোহনবাগান। ফলে রক্ষণে কিংসলে-অরিজিৎ বাগুইদের বাড়তি দায়িত্ব নিয়ে খেলতে হবেই। এদিকে এত কাঠখড় পুড়িয়ে মেহতাব হোসেনকে সই করানো হলেও পাঠচক্রের বিরুদ্ধে হয়তো রিজার্ভ বেঞ্চেই বসতে হবে তাঁকে। প্রথম একাদশে শুরু থেকেই কেন নামবেন না মেহতাব ? কোচ শঙ্করলালের সাফ কথা, যে ফুটবলার 90 মিনিট ম্যাচ ফিট নন, তাঁকে খেলাতে নারাজ তিনি। পাঠচক্রের বিরুদ্ধে কলকাতা লিগের প্রথম ম্যাচে অবিনাশ রুইদাসকেও পাচ্ছে না মেরিনার্সরা। চোট থাকায় ওঁর বদলে খেলছেন পিন্টু মাহাতো।

আট বছর কলকাতা লিগের মুখ দেখেনি মোহনবাগান। এবার লিগ ঘরে তুলতে মরিয়া মেরিনার্সরা। তবে প্রথম ম্যাচে বাগান কোচের বিপক্ষ পাঠচক্রকে সমীহ করার কারণ একটাই। দলে একঝাঁক ভারী নাম। ভিক্টর কামুখা, ক্রোয়েশিয়ার আন্তো পেজিচ, জাপানের ফুটা নাকামুরার মতো ফুটবলাররা রয়েছেন পাঠচক্রে। এ ছাড়াও স্নেহাশিস চক্রবর্তী, লালকমল ভৌমিক, বুধুরাম টুডুর মতো কলকাতার দুই প্রধানে খেলা ফুটবলাররাও রয়েছেন।

এই নামগুলি আতঙ্কের কারণ তো অবশ্যই।