বন্ধুত্বের বন্ধন পোক্ত করতে তৈরি ‘সহচরী’, মানব কল্যাণ ও মিশন

এসবিবি : ‘সহচরী’। 2017 সালে  বেলতলা গার্লসের প্রাক্তনীরা এই সংগঠন গড়ে তোলে। সকলেই 1982-র ব্যাচের  ছাত্রী ছিলেন। মূলতঃ  স্কুলজীবনের বন্ধুদের আবার ফিরে পাওয়ার মঞ্চ  তৈরির চেষ্টা করেছেন সংগঠনের সদস্যরা।  সংসার এবং কর্মজীবনের বাইরে পুরনো বন্ধুদের একসঙ্গে মিলিত হওয়ার  আনন্দটাই আলাদা বলে মনে করে তাঁরা। উদ্দেশ্য, নিজেদের ভাললাগা, মন খারাপকে আবারও ভাগ করে নেওয়া। তবে বন্ধুত্বের বন্ধন দৃঢ় করার পাশাপাশি আলাদা মিশনও রয়েছে সহচরীর। সমাজের  পিছিয়ে পড়া মানুষের পাশে  দাঁড়ানোর লক্ষ্যও রয়েছে তাঁদের। মেলা থেকে আয়  হওয়া অর্থ ব্যয়  করা হবে সামাজিক কল্যাণে। এই উদ্দেশ্যেই গড়িয়াহাট কো-অফ ব্যাঙ্কোয়েটে   আয়োজন করা হয়েছে সহচরী মেলা। 4 অগাস্ট থেকে শুরু হয়েছে এই মেলা, চলবে 5 অগাস্ট, রবিবার অবধি।  বুটিকের তৈরি বিভিন্ন জিনিসের সম্ভার  মেলায় রয়েছে। দুপুর 12 থেকে রাত 8 টা পর্যন্ত সর্বসাধারণের জন্য মেলার দ্বার খোলা হয়েছে।

সংগঠনের প্রেসিডেন্ট মৌ দত্ত জানালেন, এই সংগঠনে রয়েছেন বিভিন্ন ক্ষেত্রে প্রতিষ্ঠিত মহিলারা। কেউ স্কুলের অধ্যাপিকা, কেউ ডিজাইনার, কেউ ইঞ্জিনিয়ার , কারোর রয়েছে নিজস্ব বুটিক। ঠাকুরপুকুরের একটি সংস্থা ভয়েজ অফ ওয়ার্ল্ড -এর সঙ্গে কাজ করেন তাঁরা। মৌ দত্তের একটি স্কুলও রয়েছে। সামলান  বুটিক ব্যবসাও । নিজের বুটিকের কালেকশন নিয়ে  তিনিও রয়েছেন সহচরীর পাশে। সহচরী ভবিষ্যতে কাজ করতে চায় শারীরীকভাবে প্রতিবন্ধি শিশুদের নিয়ে। পোশাকের একটি অভিনব ব্রান্ড মুকুরও হাত বাড়িয়ে দিয়েছে  সহচরীর দিকে। বন্ধুত্ব দিবসের আগে বন্ধুত্বের নতুন ধারণা উপহার দিল বেলতলা গার্লসের প্রাক্তনীরা।