55 বছরের এই অধ্যাপকের ঝুলিতে আছে 145টি বিভিন্ন বিষয়ের ডিগ্রি!

এসবিবি : তাঁর ভিজিটিং কার্ডের সাইজ খবরের কাগজের একটি ব্রড-শিটের মতো। এ পর্যন্ত যতসংখ্যক মার্কশিট, সার্টিফিকেট, মানপত্র ইত্যাদি পেয়েছেন, তা রাখতে তিনটি আলমারি লেগেছে।

একটুও অতিরঞ্জিত নয়।

চেন্নাইয়ের 55বছর বয়সের এক অধ্যাপক, নাম ভি এন পার্থিবান। তাঁর আলমারিতেই আছে মোট 145 টি বিভিন্ন বিষয়ের ডিগ্রি। গোটা জীবনে এক- দু’টি ডিগ্রি পেতেই যখন নাজেহাল অবস্থা আম-আদমির, তখন এই অধ্যাপকের ঝুলিতে আছে,
● 10টি বিষয়ে মাস্টার অব আর্টস বা MA,

● 8টি বিষয়ে মাস্টার অব কমার্স বা M COM,

● 3টি বিষয়ে মাস্টার অব সায়েন্স বা MSC,

● 12 টি বিভিন্ন বিষয়ে রিসার্চ ডিগ্রি বা M PHIL,

● 9টি বিষয়ে মাস্টার অব বিজনেস অ্যাডমিনিস্ট্রেশন বা MBA,

পার্থিবানের সেই “ছোট্ট” ভিজিটিং কার্ড..

● 8টি মাস্টার অব ল ডিগ্রি বা LLM. ইত্যাদি…

তবে যতই 145টি ডিগ্রি থাকুক, পার্থিবানের অঙ্কে ভয় এখনও কাটেনি। পার্থিবান বলেছেন, “অঙ্কই একমাত্র বিষয়, যা আমি এখনও পুরোপুরি আয়ত্বে আনতে পারিনি। একবার অঙ্ক পরীক্ষায় তো ফেলও করেছিলাম”।

চেন্নাইয়ের অত্যন্ত গরীব পরিবারে বড় হন পার্থিবান। সেই পরিবারে পড়াশোনা করার ভাবনাটাই ছিলো বিলাসিতা। অনেক কষ্টে, দারিদ্র্যের সঙ্গে অসম লড়াই চালিয়ে জোগাড় করেছিলেন প্রথম ডিগ্রি। সেই জেদ থেকেই ডিগ্রি-অভিযানে নামেন পার্থিবান। তাঁর একমাত্র নেশা, একের পর এক ডিগ্রি অর্জন করা। আর পেশা অধ্যাপনা। চেন্নাইয়ের বিভিন্ন কলেজে তিনি 100-র বেশি বিষয়ে ছাত্রছাত্রীদের পড়ান।
শেষ 35 বছরে একটি রবিবারও ছুটি নেননি পার্থিবান। রবিবারগুলোকে তিনি এখনও কাজে লাগান কোনও না কোনও পরীক্ষার প্রস্তুতিতে। থামানো যাচ্ছে না পার্থিবানকে। এখনও নতুন নতুন ডিগ্রির জন্য চালিয়ে যাচ্ছেন নিবিড় পড়াশোনা।
তাঁর এই সাফল্যের জন্য পুরো কৃতিত্বই দেন স্ত্রীকে। দুই ছেলেমেয়েকে বড় করার দায়িত্ব স্ত্রী’র হাতেই তুলে দিয়েছেন। এক ছেলে, এক মেয়ে। তাঁরা ইঞ্জিনিয়ারিংপড়া শেষ করে MBA-ও করে ফেলেছেন। স্ত্রী’ও অবশ্য কম যান না। পুরোদস্তুর সংসার করার পরও তিনি 9টি ডিগ্রি মালকিন।

তবে সমস্যাও আছে। এততো পড়া মনে রাখতে গিয়ে অনেক ছোটখাটো বিষয় ভুলে যান ভি এন পার্থিবান। কাছের মানুষ জনকেও অনেক সময় চিনতে পারেন না তিনি। একবার তো নিজের বাড়ির রাস্তাও গুলিয়ে ফেলেছিলেন।