সিবিএসই টপারকে গণধর্ষণ হরিয়ানায়, প্রশাসন বাঁচাচ্ছে অপরাধীকেই!

এসবিবি, গুরুগ্রাম :  দুর্দান্ত ছাত্রী। খবরের শিরোনামে ছিলেন। বছর উনিশের তরুণী সিবিএসইতে দারুণ রেজাল্ট করেছিলেন। আর সেই তরুনীকেই দিনের  গণধর্ষণ করল কয়েকজন যুবক। ঘটনা হরিয়ানার মহেন্দ্রগড়ের।বুধবার এ ঘটনা ঘটার পর চাঞ্চল্য ছড়ায়। রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী যথাযথ শাস্তির প্রতিশ্রুতি দেওয়ার পরেও অভিযুক্তরা দিনের আলোয় ঘুরে বেড়াচ্ছে বলে খবর, এবং তারা ওই ছাত্রীর পরিবারকে হুমকি দিচ্ছে মামলা তুলে নেওয়ার জন্য। প্রধানমন্ত্রীর ‘বেটি বাঁচাও, বেটি পড়াও’, স্লোগান যে হরিয়ানায় এসে থমকে গিয়েছে তা আর বলার অপেক্ষা রাখে না।

বুধবার দুপুরে কোচিং ক্লাস থেকে পড়ে বাড়ি ফিরছিলেন দ্বিতীয় বর্ষের ওই ছাত্রী। মহেন্দ্রগড়ের কান্নার বাসস্ট্যান্ডে দাঁড়িয়ে ছিলেন। এই সময় 3 কলেজ ছাত্র বাইকে এসে মুখ চেপে ধরে ওই ছাত্রীর। তারপর তাকে তুলে নিয়ে গিয়ে একটি চাষের জমিতে ফেলে দেয়। কোনও ওষুধ পানীয়ের সঙ্গে খাওয়ায় এবং তিন ছাত্র ধর্ষণ করে। শুধু তাই নয় সেখানে আরও কয়েকজন এসে তার ওপর অত্যাচার চালায়। এরপর তাকে বাস স্ট্যান্ডের কাছে ফেলে রেখে চলে যায়। এবং মেয়েটির বাড়িতে ফোন করে জানায় যে বাসস্টপে তার মেয়ে অচৈতন্য হয়ে পড়ে রয়েছে। মেয়ের বাবা-মাই তাকে হাসপাতালে নিয়ে যায়। চিকিৎসকরা জানান ধর্ষণ করা হয়েছে।

এরপর শুরু হয় আসল ঘটনা। ধর্ষণের ঘটনা যে কোনও থানায় এফআইআর দায়ের করা যেতে পারে। কিন্তু ওই ছাত্রীর বাবা-মা এফআইআর করতে চাইলে একের পর এক থানা থেকে বিতাড়িত হন। শেষমেষ বাড়ির কাছে রেওয়াড়ি থানায় এফআইআর করেন। কিন্তু 48 ঘন্টা কেটে যাওয়ার পরে একজনকেও গ্রেফতার করতে পারেনি পুলিশ। মামলা তুলে নিতে চলছে হুমকি। তার পরিপ্রেক্ষিতে মেয়ের মা বলেছেন, প্রধানমন্ত্রী স্লোগান দিচ্ছেন বেটি বাঁচাও বেটি পড়াও আর অন্যদিকে আমার এই অবস্থা হওয়ার পরেও প্রশাসন কার্যত হাত গুটিয়ে বসে রয়েছে। এরপর মানুষের আর প্রশাসনের উপর বিশ্বাস থাকবে না।