আজাদ হিন্দ সরকারের 75বর্ষ, সিঙ্গাপুরে INA-সৌধে শ্রদ্ধা লিগ্যাল এড ফোরামের

এসবিবি : সিঙ্গাপুরে নেতাজি সুভাষচন্দ্র বসু প্রতিষ্ঠিত আজাদ হিন্দ সরকার প্রতিষ্ঠার 75 বছর পূর্তির প্রাক্কালে, INA-র সন্মানে গড়ে ওঠা মেমোরিয়ালে শ্রদ্ধা জানালেন অল ইণ্ডিয়া লিগ্যাল এড ফোরাম। ফোরামের সাধারন সম্পাদক জয়দীপ মুখোপাধ্যায় সিঙ্গাপুরে নেতাজি-সুভাষচন্দ্র বিষয়ক এক আলোচনাতেও অংশ নেন। তিনি বলেছেন, নেতাজি সুভাষচন্দ্র সংক্রান্ত বেশ কিছু গোপন ফাইলের হদিশ তিনি পেয়েছেন। লোকসভা ভোটের মুখে সেই সব ফাইল প্রকাশ্যে আনবেন। এর পরই দেশের বহু সন্মানীয় নেতার মুখোশ খুলে যাবে।

1943 সালের 21 অক্টোবর সিঙ্গাপুরে নেতাজি সুভাষচন্দ্র বসু    ভারত সরকার প্রতিষ্ঠা করেছিলেন। এই সরকার  “আজাদ হিন্দ সরকার” নামেই পরিচিত। 1940-এ  দেশ থেকে ব্রিটিশ শাসন উচ্ছেদের লক্ষ্যে ভারতের বাইরে যে রাজনৈতিক সংগঠনগুলি গড়ে উঠেছিল, আজাদ হিন্দ সরকার ছিল তার মধ্যে অন্যতম। দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের শেষ দিকে সিঙ্গাপুরে জাপানের  আর্থিক, সামরিক ও রাজনৈতিক সহযোগিতায় ভারতের ব্রিটিশ শক্তির সঙ্গে যুদ্ধ করার লক্ষ্যেই নির্বাসিত  জাতীয়তাবাদী ভারতীয়রাই এই সরকার প্রতিষ্ঠা করেন। 1943 সালের 21 অক্টোবর আজাদ হিন্দ সরকার প্রতিষ্ঠিত হয়।

এই সরকার নেতাজি সুভাষচন্দ্র বসুর আদর্শ এবং মতে অণুপ্রাণিত হয়েছিল। নেতাজিই ছিলেন এই অস্থায়ী ভারত সরকারের সর্বাধিনায়ক ও রাষ্ট্রপ্রধান। এই সরকার দক্ষিণপূর্ব এশিয়ার ব্রিটিশ উপনিবেশগুলিতে বসবাসকারী অসামরিক ও সামরিক কর্মচারীদের উপর নিজের কর্তৃত্ব ঘোষণা করে। পরে, দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধ চলাকালীন, ভারতে জাপানের আক্রমণের পর জাপানের সেনাবাহিনী ও আজাদ হিন্দ ফৌজ অধিকৃত অঞ্চলগুলির উপরেও নিজের কর্তৃত্ব ঘোষণা করে এই আজাদ হিন্দ সরকার।তখনই নেতাজির উদ্যোগে আজাদ হিন্দ সরকারের নিজস্ব মুদ্রা, বিচারব্যবস্থা ও দণ্ডবিধি চালু করা হয়েছিল। এই সরকারের অস্তিত্ব ভারতের অভ্যন্তরেও ব্রিটিশ বিরোধী স্বাধীনতা আন্দোলনে গভীর প্রভাব বিস্তার করতে সক্ষম হয়েছিল।

সিঙ্গাপুরের অর্চিস রোডে আইএনএ সরকারের স্মৃতিসৌধে জয়দীপবাবু শ্রদ্ধা নিবেদন করে সিঙ্গাপুর সরকারের কাছে অনুরোধ জানান, স্মৃতিসৌধ এবং নেতাজির স্মৃতিবিজড়িত অন্যান্য স্থানগুলির রক্ষনাবেক্ষন যেন যথাযথ হয়।