জন্মদিনের আগেই নিভে গেল শিশুর জীবন প্রদীপ

এসবিবি :  গান্ধীজয়ন্তীর ছুটি। স্কুল নেই। সকালে বায়না ধরেছিল মা-র সঙ্গে যাবেই। ছেলেকে না বলতে পারেন নি মা। প্রতিদিন মা কাজে যাওয়ার পর একা একা বাড়িতে থাকত সে। তাই এদিন ছেলেকে সঙ্গে নিয়েছিলেন। আগামী 5 অক্টোবর ছেলের জন্মদিন । সেই উপলক্ষে মা ভেবেছিলেন কাজ সেরে ফেরার পথে  কিনে দেবেন জন্মদিনের জন্য কিছু উপহার। আর পুজোর জামা। সেই  আনন্দে মায়ের  হাত ধরে বছর সাতেকের বিভাস যাচ্ছিল দমদম কাজিপাড়ার একটি বাড়িতে। ওই বাড়িতেই পরিচারিকার কাজ করে বিভাসের মা। ওই বাড়ির যখন ঠিক সামনে ঠিক সেই সময় বিকট শব্দ হয়। মা-র হাত ছাড়িয়ে ছিটকে পড়ে বিভাস। তারপর সব অন্ধকার। এলোমেলো হয়ে গেল সবকিছু। পূরণ হল না ইচ্ছে। কেনা হল না পুজোর জামা। কেনা হল ছোট্ট বিভাসের মায়ের কাছে আবদার করা উপহার।

দমদম কাজিপাড়ার বিস্ফোরণে গুরুতর জখম অবস্থায় মা এবং ছেলেকে ভর্তি করা নাগের বাজেরর একটি বেসরকারি হাসপাতালে। তারপর তাঁদের স্থানান্তরিত করা হয় এসএসকেএম হাসপাতালে। মাথা, বুক এবং দেহের নিমাঙ্গ পুরোপুরি ঝলসে যায় ছোট্ট বিভাসের। কয়েক ঘণ্টার মধ্যে মৃত্যু হয় শিশুটির। গুরুতর জখম অবস্থায় হাসপাতালে ভর্তি মৃত শিশুটির মা। হাসপাতালসূত্রে খবর দুটি হাত ঝলসে গিয়েছে তাঁর। রয়েছেন অচৈতন্য অবস্থায়। চিকিৎসা চলছে।

এই ঘটনায় চিকিৎসাধীন জখমদের মধ্যে অনেকর অবস্থায় গুরুতর। চিকিৎসকেরা জানিয়েছেন চিকিৎসা চলছে জখমদের। তাঁদের শারীরিক অবস্থার ক্রমেই অবনতি ঘটছে। শিশুটির মৃত্যু ঘিরে এলাকায় নেমে এসেছে শোকের ছায়া।