গণতন্ত্রের অন্তর্জলিযাত্রা : ত্রিপুরায় সিপিএম মুখপত্র বন্ধ করে দিল বিজেপি

এসবিবি, আগরতলা : তুঘলকি আচরণ। গণতন্ত্রের কথা যাঁরা বলেন, সেই বিজেপি গণতন্ত্রের ফুল ফোটাচ্ছে ত্রিপুরায়! যাঁরা জরুরি অবস্থা জারি করা নিয়ে গলা ফাটান, তাঁদের আচরণে স্তম্ভিত ত্রিপুরার মানুষ।

হয়েছেটা কী? ত্রিপুরার পঞ্চায়েত ভোটে নির্লজ্জের মতো 98% আসনে বিপ্লব দেবের সরকার বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় জেতার পর এবার সরকারের নির্দেশে বন্ধ হয়ে গেল ত্রিপুরা সিপিএমের দৈনিক মুখপত্র “ডেইলি দেশের বার্তা”। পশ্চিম ত্রিপুরার জেলাশাসক মঙ্গলবার এই নির্দেশ দিয়েছেন। জেলাশাসকের নির্দেশ হলেও এই নির্দেশ যে বিজেপি সরকারের নির্দেশ তা বলার অপেক্ষা রাখে না। অর্থাৎ, বিরোধীদের বলতে দিও না। একটাই মত, একটাই পথ, তা হল ভারতীয় জনতা পার্টি।

মহকুমা শাসকের দাবি, আরএনআই সংক্রান্ত রিপোর্ট পাওয়ার পরেই সোমবার রাতে এই সিদ্ধান্ত জানিয়ে দেওয়া হয়। এর সঙ্গে যোগ করা হয়েছে মালিকানা সংক্রান্ত বিবাদ। সিপিএম সাফ জানিয়েছে, যদি সেটাই হয়, তবে আরএনআইয়ের নির্দেশ কোথায়? যদি মালিকানা নিয়ে গণ্ডগোল থাকে, তবে সরকারের তাতে কী যায় আসে! সিপিএম সাধারণ সম্পাদক সীতারাম ইয়েচুরি বলেন, আর এক জরুরি অবস্থা ফিরে আসছে। ডেইলি দেশের কথার সম্পাদক গৌতম দাস বলেন, গণতন্ত্র আর বিরোধী মতের টুঁটি চিপে ধরতেই এসব করা হচ্ছে। 40 বছর ধরে চলা সংবাদপত্রকে বন্ধ করা যাবে, কিন্তু সম্ভব নয় বামেদের কণ্ঠ বন্ধ করা।