রোমহর্ষক হরর মুভি না শেয়ার বাজার, ‌বিভ্রান্তি লগ্নিকারীদের মধ্যে

পার্থসারথি গুহ

‌অত্যন্ত খারাপ তিনটে দিন, তার থেকেও খারাপ একটি সপ্তাহ। বস্তুত, বিগত সপ্তাহটি এতটাই ভয়ঙ্কর ছিল যে সাধারণ লগ্নিকারীদের একেবারে শিউরে উঠতে হল প্রতিটি পদে। যার পরিণাম বিশালাকারের ক্ষতি স্বীকার। আপাতত এই ধাক্কা কাটিয়ে ওঠা শুধু কঠিনই নয়, বেজায় মুশকিল।
‌কিন্তু তাই বলে অসম্ভব নয় ঘুরে দাঁড়ানো। কারণ, এর থেকেও বহু খারাপ পরিস্থিতি থেকে ঘুরে দাঁড়ানোর ভরপুর রেকর্ড আছে অর্থবাজারের। এখন দেখতে হবে কবে সেই মাহেন্দ্রক্ষণ এসে উপস্থিত হচ্ছে যখন বাজার সত্যিই ঘুরে যাবে।
‌যদিও বিশেষজ্ঞরা এখনই তেমন কিছু ভালো সময় দেখছেন না, যে জায়গা থেকে বাজার সত্যি ঘুরে যেতে পারে। তবে যেহেতু এটা অন্য কোনও বাজার নয়, একেবারে শেয়ার মার্কেট তাই অঘটন কখন ঘটবে তা আগাম বলা সম্ভব নয়।
‌এই অঘটনের ঠেলায় চূড়ান্ত একটা জায়গা থেকে বাজার যেমন সেঁধিয়ে যেতে পারে পাতালে আবার অত্যন্ত সঙ্গীন পরিস্থিতি থেকেও মোড় ঘুরতে পারে। মাত্র কটা ট্রেডিং সেশন আগেই ভারতীয় সূচকজোর ছিল তার সর্বোচ্চ অবস্থানে। সেখান থেকে আজ এই অচলাবস্থা ঘনীভূত হয়েছে। আর সেপ্টেম্বরে সেটব্যাক হয়ে থাকলে অক্টোবরে পুরো তলিয়ে গিয়েছে সূচক। সেই জায়গা থেকে পালটা আঘাত হানা তো চাট্টিখানি কথা নয়। বাজারের আগের ট্র‍্যাক রেকর্ড অবশ্য বলছে পুল ব্যাক হলেও হতে পারে। বিশেষ করে মুহুরত ট্রেডিংয়ের প্রাক মুহূর্তে আরও একবার বাজার ওপরের দিকে মুখ ঘোরাতে পারে। তার আগে হয়তো 10 হাজার (বড়জোর) 9700 পর্যন্ত চলে আসতেও পারে নিফটি। তারপর বুলদের উৎসব মেজাজের হাত ধরে আরও একবার 11 হাজার ছুঁতে পারে নিফটি।