সাহিত্যিক সৈয়দ মুস্তাফা সিরাজের জন্মদিবসে সংবাদ বিশ্ববাংলার শ্রদ্ধার্ঘ্য

এসবিবি : সৈয়দ মুস্তাফা সিরাজ (14 অক্টোবর, 1930 – 4 সেপ্টেম্বর, 2012) ছিলেন একজন প্রথিতযশা লেখক। তাঁর জন্ম মুর্শিদাবাদের খোশবাসপুর গ্রামে। কর্ণেল তাঁর সৃষ্ট একটি গোয়েন্দা চরিত্র । তাঁর “ইন্তি, পিসি ও ঘাটবাবু”, “ভালোবাসা ও ডাউনট্রেন”, “তরঙ্গিনীর চোখ”, “জল সাপ ভালোবাসা”, “হিজলবিলের রাখালেরা”, “নৃশংস”, “রণভূমি”, “মাটি”, “উড়োপাখির ছায়া”, “রক্তের প্রত্যাশা”, “মানুষের জন্ম”, “মৃত্যুর ঘোড়া”, “গোঘ্ন”, “রানীরঘাটের বৃত্তান্ত”, ইত্যাদি অসংখ্য ছোটগল্পের জন্য বিশ্বসাহিত্যের দরবারে স্থায়ী আসন পেয়েছেন ৷ গোয়েন্দা কর্ণেল নীলাদ্রি সরকার ও অলীক মানুষের স্রষ্টা। তাঁর অনেক কাহিনী চলচ্চিত্রায়িত হয়েছে , যেমন ‘কামনার সুখ দুঃখ’ উপন্যাস অবলম্বনে ‘শঙ্খবিষ”।দীনেন গুপ্তের পরিচালনায় ‘নিশিমৃগয়া,’ উত্তমকুমার অভিনীত ‘আনন্দমেলা’।অঞ্জন দাশ পরিচালনা করেছেন সিরাজের ছোটগল্প’রানীরঘাটের বৃত্তান্ত’ অবলম্বনে ‘ফালতু’ । সিরাজের “মানুষ ভূত” কাহিনী চলচ্চিত্র ছাড়াও দীর্ঘদিন ধরে মঞ্চে ক্রমাগত অভিনীত হচ্ছে। তাঁর উপন্যাসের মধ্যে ‘নীলঘরের নটী’, ‘হিজলকন্যা’, ‘তৃণভূমি’, ‘উত্তর জাহ্নবী’, ‘অলীক মানুষ’ বিশেষভাবে উল্লেখযোগ্য।
তাঁর প্রাপ্ত পুরস্কারের মধ্যে রয়েছে আনন্দ পুরস্কার, সাহিত্য একাদেমী পুরস্কার, বঙ্কিম পুরস্কার, ভূয়ালকা পুরস্কার, নরসিংহদাস পুরস্কার ইত্যাদি।