তৃতীয় ফ্রন্টের ভবিষ্যত কিন্তু এখনও উজ্জ্বল, কুণাল ঘোষের কলম

    কুণাল ঘোষ

1) কয়েকটি রাজ্যে বিজেপি ক্ষমতাচ্যুত। কংগ্রেস মসনদে। এটা কংগ্রেসের সাফল্য। কিন্তু তার মানেই দেশজুড়ে কংগ্রেসের হাওয়া উঠেছে বলে এখনও মনে হচ্ছে না।

2) বিজেপি যেখানে ক্ষমতাচ্যুত, সেই বড় রাজ্য মধ্যপ্রদেশ বা রাজস্থানে ভোটের ব্যবধান বেশি না। ফলে সরকার বদলালেও কংগ্রেসের জয়ের ভিত গভীর না। আঞ্চলিক সমীকরণ, প্রতিষ্ঠানবিরোধিতার বিষয় আছে।

3) বিজেপিবিরোধী মঞ্চে হাত তুলে ছবি তুললেও মহাজোটে নানা রসায়ন। একাধিক দল কংগ্রেসের নিরঙ্কুশ নেতৃত্ব মানবে না।

আরও পড়ুন : এই প্রথম EVM-এ ভোট নেওয়া হবে, যদিও মাত্র 6 আসনে

4) এখনও যা প্রবণতা, বিজেপি ও এনডিএ ম্যাজিক ফিগার না পেলে কংগ্রেসও একা সরকার গঠনের জায়গায় যাবে না। বাকি দলগুলির সাংসদসংখ্যা মেলালে কংগ্রেসের কাছাকাছি কিংবা বেশিও থাকতে পারে।

5) একক বৃহত্তম দল বিজেপি। দ্বিতীয় কংগ্রেস। তৃতীয় তৃণমূল। এটা প্রায় নিশ্চিত।

6) উত্তরপ্রদেশ বা একাধিক রাজ্যে বিজেপিবিরোধী দলগুলি যে কংগ্রেসকে বাড়তে দেবে, তাও নয়। পশ্চিমবঙ্গও এই তালিকায় থাকবে।

7) প্রাকনির্বাচনী যে জোটের চেহারাই হোক, ভোটপরবর্তী বহু সমীকরণ বদলের দরজা খোলা থাকবে।

8) যদি দেখা যায় কংগ্রেস আর অন্যদলগুলি মিলিয়ে এনডিএর বেশি হচ্ছে, তখন সংখ্যার টানাটানি চলবে। কংগ্রেসকেই যে বাকিরা সমর্থন করবে, এটার 100% গ্যারান্টি নেই।

আরও পড়ুন : সাহিত্য জগতে নক্ষত্রপতন, প্রয়াত নীরেন্দ্রনাথ চক্রবর্তী

9) বিরোধীশক্তির মধ্যে মেরুকরণ থাকবে। কংগ্রেসকে বাকিরা সমর্থন দেবে, নাকি 1996 মডেলে কংগ্রেস বাধ্য হবে তৃতীয় ফ্রন্টকে সমর্থনে, তখন বোঝা যাবে। কংগ্রেস 180 পার করলে নিয়ন্ত্রক হবে। কমবেশি 150 থাকলে তৃতীয় ফ্রন্টের হাতে লাগাম চলে যাবে।

10) যদি বিজেপি কোনোভাবে ড্যামেজ কন্ট্রোল করে 272 পার করে দেয়, তাহলে এত গল্প আসবে না। কিন্তু এই কাজটা বেশ কঠিন। রামমন্দির ভোট আনবে না। আর্থিক নীতি, মূল্যবৃদ্ধির জেরে যা ক্ষোভ, সেটা মোদিম্যাজিকে সামলানো যাবে কিনা, সময় বলবে। যদি বিজেপি ও এনডিএ 272-এর নিচে থাকে, এবং কংগ্রেস 150তে আটকায়, তাহলে কিন্তু তৃতীয় মোর্চার গুরুত্বপূর্ণ হয়ে ওঠার সব দরজা খোলাই থাকবে।

আরও পড়ুন : বড়দিনের বড়খবর, আনন্দবাজারে রাজ্য সরকারি বিজ্ঞাপন

যেহেতু, তৃতীয় বৃহত্তম দল হবে তৃণমূল, ফলে তৃণমূলনেত্রীর অভিজ্ঞতা, দাপট, জনসমর্থন ও জনসংযোগ নতুন সরকার গঠনে তুরূপের তাস হয়ে উঠবে ; যার ভিত্তিপ্রস্তর তিনি স্থাপন করবেন 19 জানুয়ারির ব্রিগেডে। এটা ব্যক্তিগত পছন্দ-অছন্দের বিষয় না। বাস্তব রাজনীতির অঙ্ক।