ফলাফল প্রায় নিশ্চিত, জাতীয় সংসদের নির্বাচন রবিবার, সতর্কতা সর্বস্তরে

এসবিবি, ঢাকা : আগামীকাল রবিবার, 30 ডিসেম্বর, সকাল 8টা থেকে বিকেল 4টে পর্যন্ত বিরতিহীনভাবে চলবে বাংলাদেশের জাতীয় সংসদ নির্বাচনপর্ব ।

●স্বীকৃত সব দলই ভোটে আছে

নির্বাচন কমিশন
স্বীকৃত 39টি রাজনৈতিক দল এবারের নির্বাচনে অংশ নিয়েছে। পাশাপাশি, এখনও স্বীকৃতি না পাওয়া একাধিক রাজনৈতিক দলও প্রধান দুই জোটের শরিক হয়ে নির্বাচনে লড়ছে। বামমোর্চা ও কয়েকটি ইসলামি দল এবং নির্দল প্রার্থীরাও ভোট ময়দানে আছে।
এ বছর নির্বাচন কমিশনের স্বীকৃত মোট 39টি রাজনৈতিক দলই অংশগ্রহণ করছে। 299 আসনে প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থীর সংখ্যা 1,861 জন। এর মধ্যে রাজনৈতিক দলের প্রার্থীর সংখ্যা 1,733জন, নির্দল প্রার্থী হিসেবে নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতায় রয়েছেন 128 জন প্রার্থী।

●ভোটার ও ভোটকর্মী

এবারের ভোটে রিটার্নিং অফিসার হিসেবে থাকছেন 66 জন। এর মধ্যে 2জন বিভাগীয় কমিশনার এবং 64 জন জেলাশাসক। 40 হাজার 183টি ভোটকেন্দ্রের 2 লাখ 7 হাজার 312টি ভোটকক্ষে 10 কোটি 42 লাখ 38 হাজার 677 জন ভোটার তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করবেন। এর মধ্যে পুরুষ ভোটার 5 কোটি 25 লাখ 72 হাজার 365 জন। এবং মহিলা ভোটার রয়েছেন 5 কোটি 16 লাখ 66 হাজার 312 জন।
নতুন প্রায় 1 কোটি 23 লাখ ভোটার প্রথমবার জাতীয় নির্বাচনে ভোট দেবেন।

● ভোট 299 কেন্দ্রে

দেশের 300 সংসদীয় আসনের মধ্যে গাইবান্ধা-3 আসনে এক প্রার্থীর মৃত্যু হওয়ায় 299 আসনে ভোট হবে। এই কেন্দ্রের ভোটগ্রহণ পিছিয়ে 27 জানুয়ারি করা হয়েছে।

● লড়াই ‘নৌকা’ আর ‘ধানের শীষ’-এ

ভোটে মূল লড়াই হবে, আওয়ামি লিগ মহাজোটের ‘নৌকা’ ও বিএনপি- ঐক্যফ্রন্টের ‘ধানের শীষ’-এর মধ্যে। প্রচার শেষ হলেও নৌকার চেয়ে ঢের পিছিয়ে ধানের শীষের প্রার্থীরা। বিশেষ করে, রাজধানীতে বিএনপি ও ঐক্যফ্রন্টের কে কোন আসনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন তা জানারও সুযোগ পাননি ভোটাররা।

● প্রথমবার EVM

এবারই প্রথম 6টি সংসদীয় আসনে ইলেক্ট্রনিক ভোটিং মেশিন বা EVM ব্যবহার হচ্ছে। আসনগুলি হলো, ঢাকা-6, ঢাকা-13, রংপুর-3, খুলনা-2, সাতক্ষীরা-2 এবং চট্টগ্রাম-2 কেন্দ্র।

● ফলাফল জানা যাবে যেভাবে

ফলাফল ঘোষণা বিষয়ে নির্বাচন কমিশনের অতিরিক্ত সচিব মোখলেসুর রহমান বলেছেন, “প্রতিটি ভোটকেন্দ্রেই ফলাফল ঘোষণা হবে। প্রিসাইডিং অফিসার ভোটগ্রহণ শেষে সংশ্লিষ্টদের উপস্থিতিতে ভোটকেন্দ্রেই ভোট গণনা করবেন। এ সময় সহকারি রিটার্নিং অফিসার, প্রার্থীর এজেন্টরা উপস্থিত থাকতে পারবেন। ভোট গণনা শেষে প্রিসাইডিং অফিসাররা লিখিত ফলাফল জানিয়ে দেবেন। পরে এই ফলাফল রিটার্নিং অফিসারের কাছে পাঠাবেন। রিটার্নিং অফিসাররা তা কমিশনে পাঠাবেন। কমিশন আনুষ্ঠানিকভাবে ফল ঘোষণা করবে। কমিশন দফতরে 10টি জায়েন্ট স্ক্রিনে ফলাফল দেখানো হবে।

●যান চলাচলে নিষেধাজ্ঞা

নির্বাচন উপলক্ষে আজ, শনিবার রাত 12টা থেকে ভোটের দিন, 30 ডিসেম্বর, রাত 12টা পর্যন্ত সবধরনের যানবাহন চলাচলের ওপর নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে নির্বাচন কমিশন। এই সময়ে বেবি ট্যাক্সি, অটোরিকশা, ইজিবাইক, ট্যাক্সি ক্যাব, মাইক্রো-বাস, জিপ, পিকআপ, কার, বাস, ট্রাক, টেম্পোসহ স্থানীয় যন্ত্রচালিত যানবাহন চলাচলে নিষেধাজ্ঞা জারি হয়েছে। শুক্রবার থেকে পয়লা জানুয়ারি, মোট চারদিন সারাদেশে মোটরসাইকেল চালানোয় নিষেধাজ্ঞা রয়েছে। তবে সাংবাদিকরা কমিশনের স্টিকার ব্যবহার করে বাইক চালাতে পারবেন।
রিটার্নিং কর্মকর্তার অনুমতি পেলে প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী ও তাদের নির্বাচনী এজেন্ট, উপযুক্ত পরিচয়পত্র থাকা দেশি-বিদেশি পর্যবেক্ষকদের ক্ষেত্রে যান-বিধি শিথিলযোগ্য। নির্বাচনের সংবাদ সংগ্রহের কাজে নিয়োজিত স্বীকৃত সাংবাদিক, নির্বাচনের কাজে নিযুক্ত কর্মকর্তা-কর্মচারী, আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্য, নির্বাচনের বৈধপরিদর্শক ও জরুরি কাজ, যেমন- অ্যাম্বুল্যান্স, ফায়ার সার্ভিস, বিদ্যুৎ, গ্যাস, ডাক, টেলিযোগাযোগ ইত্যাদি কাজে নিযুক্ত যানবাহনও নিষেধাজ্ঞার বাইরে থাকবে।

● নিরাপত্তা ব্যবস্থা

ভোট অবাধ ও সুষ্ঠু রাখতে মাঠে রয়েছে পর্যাপ্ত নিরাপত্তা বাহিনি। ভোটকেন্দ্র এবং নির্বাচনী এলাকায় সেনাবাহিনী ও অন্যান্য আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যসংখ্যা প্রায় 6 লাখ 8 হাজার। এর মধ্যে পুলিশ প্রায় 1 লাখ 21 হাজার, আনসার প্রায় 4 লাখ 46 হাজার, গ্রাম-পুলিশ প্রায় 41 হাজার। সেনাবাহিনীর প্রতি প্লাটুনে থাকেন 39 জন। 389টি উপজেলায় 414 প্লাটুন, নৌবাহিনী 18টি উপজেলায় 47 প্লাটুন, কোস্টগার্ড 12 উপজেলায় 42 প্লাটুন, বিজিবি 983 প্লাটুন, র্যাব প্রায় 600 প্লাটুন ভোটে নিযুক্ত আছেন। এছাড়া মোবাইল ও স্ট্রাইকিং ফোর্সের সংখ্যা প্রায় 2 হাজার প্লাটুন, প্রায় 65 হাজার। তাছাড়া সারাদেশে জেলা ও মেট্রোপলিটন পুলিশের টহল দল নিয়োজিত আছে।

●দেশি-বিদেশি পর্যবেক্ষক

দেশি 81 পর্যবেক্ষক সংস্থার 25 হাজার 900, ফেম্বোসা, এএইএ, ওআইসি ও কমনওয়েলথ হতে আমন্ত্রিত ও অন্যান্য বিদেশি পর্যবেক্ষক 38 জন, কূটনৈতিক, বিদেশি মিশনের কর্মকর্তা 64 জন এবং বাংলাদেশস্থ দূতাবাস-হাইকমিশন বা বিদেশি সংস্থায় কর্মরত বাংলাদেশি 61 জন।

●মোবাইল ব্যাংকিং বন্ধ

নির্বাচনে অবৈধ লেনদেন বন্ধে শুক্রবার 28 ডিসেম্বর, বিকেল 5টা থেকে 30 ডিসেম্বর বিকেল 5টা পর্যন্ত সবধরনের মোবাইল ব্যাংকিং বন্ধ থাকবে।

আরও পড়ুন-সুমনের বদলে “এই সময়”তে সম্পাদক জয়ন্ত?