কৌরবদের “টেস্ট টিউব বেবি” বললেন অন্ধ্র বিশ্ববিদ্যালয়ে উপাচার্য

এসবিবি : বর্তমান দুনিয়া প্রযুক্তি নির্ভর। বিজ্ঞান ও প্রযু্ক্তিকে কাজে লাগিয়ে নাকি মরা মানুষ বেঁচে ওঠার মতো অস্বাভাবিক ঘটনা ঘটছে। আর আধুনিক বৈজ্ঞানিক চিকিৎসা পদ্ধতির সাহায্যে বন্ধ্যাত্বের সমস্যাও রোধ করা যাচ্ছে। যার নাম ‘টেস্ট টিউব বেবি’। আজকের দিন যা একেবারে হাতের মুঠোয় রয়েছে।

আরও পড়ুন-রেকর্ড : বিজেপি’র জাতীয় পরিষদের সম্মেলনে ডাক পেলেন রাজ্যের 628 নেতা

তবে মহাভারতের যুগে আজকের মতো চিকিৎসা পদ্ধতির কথা ভাবা না গেলও তখন নাকি এই টেস্ট টিউব বেবি পদ্ধতি ছিল। এমনই বিস্ফোরক মন্তব্য করেছেন অন্ধ্র বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক জি নাগেশ্বর রাও। শুক্রবার ভারতীয় বিজ্ঞান কংগ্রেসের মঞ্চে বক্তব্য রাখতে গিয়ে তাঁর দাবি মহাভারতের যুগে এক মায়ের গর্ভ থেকে শত কৌরবের জন্ম হয়েছিল স্টেম সেল গবেষনা এবং টেস্ট টিউব বেবি প্রযুক্তির মাধ্যমে।

আরও পড়ুন-লোকসভা ভোটে তৃণমূলের সমর্থনে পাহাড়ে প্রার্থী হতে চান বিনয় তামাং

যদিও পদ্ধতিটা আলাদা ছিল। হাজার বছর আগের বিজ্ঞানের সাহায্যেই একশোটি ডিম্বানু নিষিক্ত করে সেগুলিকে একশোটি মাটির পাত্রে রাখা হয়েছিল। সেটি একপ্রকার টেস্ট টিউব বেবিই বলা উচিত বলেও মন্তব্য করেন তিনি। পাশাপাশি স্টেম সেল গবেষনা হাজার বছরের পুরানো বলেও জানিয়েছেন তিনি