গুলি-গ্রেনেড হামলায় যে কোনও মুহূর্তে চলে যেতে হতে পারে: আশঙ্কিত শেখ হাসিনা

এসবিবি, ঢাকা: এক অজানা আশঙ্কার কথা শোনালেন শেখ হাসিনা।
“লেট’স টক উইথ শেখ হাসিনা”, শীর্ষক এক অনুষ্ঠানে শেখ হাসিনা বলেছেন, “নিজের_ জীবনটাকে দেশের জন্য উৎসর্গ করেছি। আসলে আমার নিজের বলতে কিছু নেই। রাতে 5 ঘণ্টা ঘুমাই। আর বাকি সময় চেষ্টা করি, কত দ্রুত আমার কাজগুলো শেষ করতে পারি। আমি জানি, গুলি- গ্রেনেড হামলায় যে কোনও মুহূর্তে চলে যেতে হতে পারে। তাই প্রতিটি মুহূর্তে দেশের মানুষের জন্য কিছু করে যাওয়ার চেষ্টা করি।”

আবার পড়ুন- সনির গোলে ঘরের মাঠে জয় বাগানের

এদেশে আমরা প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির ‘মন কি বাত’ শুনেছি, এবার বাংলাদেশ শুনল “লেট’স টক উইথ শেখ হাসিনা”। এই অনুষ্ঠানে এবারই প্রথম তরুণদের মুখোমুখি হন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তরুণদের নানা প্রশ্নের জবাব দেন প্রধানমন্ত্রী। শোনেন তাদের স্বপ্নের কথাও। প্রধানমন্ত্রী বলেন,“আমাদের জীবনে ব্যস্ততার কারণে অনেক রুটিন ঠিক থাকে না। তবে নিজেকে সুস্থ রাখতে আমি নামাজ পড়ি নিয়মিত।” রান্নাঘরের কথা থেকে শুরু করে, কৈশোরের দুরন্তপনা, স্কুলজীবনের মজার ঘটনা, মায়ের কাছে আবদার^ মেটানোর কৌশল, পারিবারিক ট্র্যাজেডি, বাধার পর বাধা ডিঙিয়ে এগিয়ে চলার গল্পসহ প্রধানমন্ত্রীর ব্যক্তি ও রাজনৈতিক জীবনের নানা অজানা কথা উঠে এসেছে এই অনুষ্ঠানে।

আবার পড়ুন-  জমজমাট খাদ্যমেলা “চেটেপুটে”

বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী বলেন, ব্যায়াম করার সুযোগ হয় না। গণভবনে থাকা তো বন্দিজীবনের মতো। তবুও চেষ্টা করি সকালে উঠে একটু হাঁটতে। ছাদে হাঁটি। তিনি জানান, “পরিমিত আহার করলে সুস্থ থাকা যায়। আর চিন্তা-ভাবনাকে স্বচ্ছ রাখা যায়, এটা মনে প্রাণে বিশ্বাস করি।”