বিরাট-ধোনির ব্যাটে ভর করে ‘বিরাট’ জয় ভারতের

এসবিবি স্পোর্টস: প্রথম ওডিআই হারের পর বিরুষ্কার ছবি দেখে বিরাটকে উপদেশ দিতে ছাড়েননি সমর্থকেরা। এবার সেই সমর্থকদের জবাব দিয়ে দ্বিতীয় ওডিআই ম্যাচে শতরান হাঁকালেন কোহলি। জিতলেন ম্যাচও। অস্ট্রেলিয়ার 298 রান তাড়া করে 50 ওভারের আগেই ম্যাচ পকেটে পুরল কোহলি ব্রিগেড।

আরও পড়ুন- মমতাকে প্রধানমন্ত্রী হিসাবে চাইছেন অযোধ্যাবাসী!

টেস্ট সিরিজে বেনজির সাফল্যের পর প্রথম ওয়ানডে-তে অপ্রত্যাশিত হার চাপে ফেলে দিয়েছিল ভারতকে। তাছাড়া হার্দিক পাণ্ডিয়া এবং লোকেশ রাহুলকে নিয়ে মাঠের বাইরে বিতর্ক তো রয়েইছে। সব মিলিয়ে অ্যাডিলেডে নামার আগে বেশ চাপেই ছিল বিরাট-ব্রিগেড। সেই চাপ কাটিয়ে উঠে ‘বিরাট’ পারফরম্যান্স দেখালেন কোহলি। সঙ্গে সেই পুরানো ছন্দে ধোনি। গ্রেট ফিনিশারের ‘চার্ম’ যে এখনই শেষ হয়ে যায়নি তা আরও একবার দেখিয়ে দিলেন প্রাক্তন অধিনায়ক। অর্ধশতরান করে, ছয় মেরে দলকে জিতিয়ে, একশোর ওপরে স্ট্রাইক রেট রেখে ভারতকে জিতিয়ে মাঠ ছাড়লেন এমএসডি।

আরও পড়ুন- NRS কাণ্ডে স্ত্রীর ভুয়ো ছবি পোস্ট নিয়ে পুলিশের দ্বারস্থ ব্যক্তি

টস জিতে আগের দিনের মতই আজকেও ব্যাট করার সিদ্ধান্ত নেয় অজিরা। ‘আর একটি ম্যাচ জিতলেই সিরিজ’ এই ভাবেই নিজের অনুপ্রেরিত করে এ দিন নেমেছিল অ্যারন ফিঞ্চের দল। তবে একশো ওঠার আগেই তিন উইকেট হারিয়ে কিছুটা চাপে পড়ে যায় অজিবাহিনী। কিন্তু এর পরেই শুরু হয় শন মার্শ শো। অনেকদিন ধরেই বিশেষ রান নেই তাঁর ব্যাটে। এ কারণে তাঁকে দলের বাইরে রাখারও দাবি উঠছিল। সেই সব সমালোচনার জবাবই এ দিন দিলেন মার্শ। তাঁর ব্যাটিং তাণ্ডবের কাছে অস্ট্রেলিয়ার বাকি ব্যাটসম্যানরা ম্লান হয়ে গিয়েছিলেন। প্রথম দিকে ভারতীয় বোলাররা দাপট দেখালেও মার্শের সামনে সবাই ফিকে হয়ে যান। মার্শের ব্যাটিংয়ে ভর করে ভারতের সামনে 298 রানের পাহাড়প্রমাণ টার্গেট রাখে অস্ট্রেলিয়া। 4টি উইকেট নেন ভুবি ও 3টি উইকেট পান মহম্মদ শামি।

আরও পড়ুন- “মুর্শিদাবাদের কোনও আসনে মুখ্যমন্ত্রী দাঁড়ান আমার বিরুদ্ধে”: অধীর চৌধুরি

অজিদের জবাব দিতে ব্যাট হাতে ওপেনিং করেন রোহিত-ধাওয়ান জুটি। তবে ভালোভাবে শুরু করলেও 50 এর আগে ফিরে যান ধাওয়ান। এরপর ক্রিজে আসেন বিরাট। এরপর শুরু বিরাট শো। ঘন্টাখানেক মেতে থাকল অ্যাডিলেড। নিজের সেই চেনা ছন্দে অজি বোলারদের শাসন করতে শুরু করেন বিরাট। এরপরেই আবার ধাক্কা খায় ভারত। 50 এই কিছুটা আগেই প্যাভিলিয়নে ফেরেন হিটম্যান। রায়ডু মাঠে এলেও বেশিক্ষণ টিকে থাকতে পারেনি। এরপর মাঠে নামেন ধোনি। ইংল্যান্ডের পর এ বার কি অস্ট্রেলিয়ার মাঠেও একদিনের সিরিজ হারবে ভারত? এই প্রশ্ন যখন মাথাচাড়া দিতে শুরু করেছে, তখনই নিজের পুরনো রূপ ধরলেন ধোনি। লিয়ঁর বলে ছক্কা মেরে জানান দিলেন এখনও ম্যাচ জেতানোর ক্ষমতা রাখেন তিনি। অপরাজিত থাকলেন 55 রানে।

আরও পড়ুন-মকর সংক্রান্তিতে উপচে পড়া ভিড় হুগলি’র গঙ্গাঘাটে

হারের মুখে দাঁড়িয়ে থেকে সিরিজে সমতা ফেরাল ভারত। সবার নজর এ বার শুক্রবারের মেলবোর্নে। ম্যাচ যার, সিরিজ তার।