লাথি মেরে গৃহবধূর ভ্রুণ নষ্ট করার অভিযোগ, গ্রেফতার 2

এসবিবি: দাবি মতো পণ না পাওয়ায় গৃহবধূর পেটে লাথি মেরে গর্ভের ভ্রুণ নষ্ট করার অভিযোগ উঠল শ্বশুরবাড়ির সদস্যদের বিরুদ্ধে। ওই গৃহবধূর নাম রূপসোনা বেগম। উলুবেড়িয়ার জয়পুর থানার খালনা দক্ষিণ পাড়া এলাকার ঘটনা। গৃহবধূর বাপের বাড়ির সদস্যদের অভিযোগের ভিত্তিতে শ্বশুরবাড়ির দুজন সদস্যকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। এছাড়াও রূপসোনার শ্বশুরবাড়ির আরও তিন সদস্যদের নামে বধূ নির্যাতনের অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে তাঁর পরিবারের তরফ থেকে।

আরও পড়ুন- রবিনার সঙ্গে সৌগতর তাল, দেখুন ভিডিও

রূপসোনার বাপের বাড়ি সূত্রে জানা গিয়েছে, প্রায় আটমাস আগে রূপসোনার সাথে জয়পুরের খালনার বাসিন্দা রহিমা খাঁ-এর বিয়ে হয়। বিয়ের সময় রহিমের পরিবারের দাবি মতো নগদ টাকা, গহনা ও আসবাব পত্র দিয়েছিল রূপসোনার পরিবার। কিন্তু তাতেও মনোঃপুত হননি রূপসোনার শ্বশুর বাড়ির লাকেরা। বিভিন্ন সময় তাঁকে বাপের বাড়ি থেকে টানা আনতে চাপ দেওয়া হতো বলে অভিযোগ। না আনতে পারলেই তাঁকে শারীরিক নির্যাতন করা হত।

আরও পড়ুন- মহা-ব্রিগেডে নক্ষত্র সমাবেশ, কে কখন আসছেন

বেশ কয়েকদিন আগে রূপসোনাকে বাপের বাড়ি থেকে নগদ কুড়ি হাজার টাকা নিয়ে আসার জন্য চাপ দেয় তাঁর শ্বশুর বাড়ির লোকজন। কিন্তু দশ হাজার টাকা নিয়ে আসায রূপসোনার ওপরে অত্যাচার শুরু করে। রূপসোনার স্বামী তাঁর পেটে লাথি মারে বলেও অভিযোগ করেছেন রূপসোনার পরিবার। এরপর গুরুতর আহত হন রূপসোনা। আহত অবস্থায় উলুবেড়িয়া মহকুমা হাসপাতালে বর্তি করলে তিনি মৃত ভ্রুণ প্রসব করেন।

আরও পড়ুন- প্রাক্তন পাক ক্রিকেটাররা নাকি শৌচাগারেও কাজ করতে ইচ্ছুক!