জানেন প্রত্যেক শুক্রবারে সন্তোষী মায়ের ব্রত করলে কী ফল পাবেন?

প্রশান্ত দাস

পৌরাণিক মতে, সন্তোষী মা গণেশের কন্যা ৷ গণেশের দুই ছেলে শুভ আর লাভের ইচ্ছে হয়েছিল বোনের হাতে রাখির পরার ৷ কিন্তু গণেশের কন্যা ছিল না ৷ পুত্রদের ইচ্ছে পূরণ করতেই এক কন্যার সৃষ্টি করলেন গণেশ ৷ সেই মেয়ের হাতে রাখি পরলেন শুভ ও লাভ ৷ সেই মেয়ে দাদাদের মনের ইচ্ছে পূরণ করলেন বলেই, নাম পড়ল সন্তোষী ৷ বাঘের পিঠের ওপর আসীন এই দেবী পূজিতা হন দুর্গার এক অবতার রূপেই ! সংসারে সুখ, সমৃদ্ধি ও বংশের আলো জ্বালিয়ে রাখার ব্যাপারে সন্তোষী মা বিশেষভাবে পূজিত হন ৷ প্রতিদিনই তাঁর পূজো করা যায় ৷ কিন্তু শুক্রবারটা একেবারেই বিশেষ ৷ শাস্ত্রে রয়েছে, এই শুক্রবারই হল সন্তোষী মায়ের কাছে ইচ্ছে পূরণের দিন ৷

আরও পড়ুন – লাদাখে ভয়াবহ তুষার ধসে মৃত 1

 

তবে সন্তোষী ব্রতের কিন্তু আলাদা নিয়ম রয়েছে ৷ এই পুজো কিন্তু অন্যান্য পুজো থেকে একেবারে আলাদা ৷ পুজোর জন্য লাগবে‚

ব্রত করার পদ্ধতি –  শুক্রবার সকালে স্নান সেরে পরিষ্কার বসনে দেবীর সামনে ঘট প্রতিষ্ঠা করুন ৷ ঘটে গঙ্গাজল বা গঙ্গাজল না পেলে এমনি পরিষ্কার জল দিয়ে পূর্ণ করুন ৷ ঘটের উপর ফল রাখুন ৷ প্রসাদ হিসেবে দিন ছোলা‚ গুড় এবং কলা ৷ প্রথমে সন্তোষী মায়ের বাবা গণেশ এবং দুই মা ঋদ্ধি ও সিদ্ধির পুজো করুন ৷ তারপর সন্তোষী দেবীর ব্রতকথা পাঠ করুন ৷

পাঠ শেষে শঙ্খ ও উলুধ্বনি দিন ৷ প্রণাম করে বলুন‚ ‘ জয় সন্তোষী মা !’ এরপর আরতি করুন ৷ শান্তির জল ছিটিয়ে দিন বাড়ির সর্বত্র ৷

আরও পড়ুন –অবশেষে মুক্তি পেতে চলেছে ‘নগর কীর্তন’

প্রসাদ বিতরণ করে ওই প্রসাদ দিয়েই ভঙ্গ করতে পারেন উপবাস বা সারাদিনও রাখতে পারেন উপবাস ৷ শুক্রবার সন্তোষী মায়ের আবির্ভাবের দিন বলে ওইদিন এই পুজো পালিত হয় | কোনও তিথি নক্ষত্রের বিধিনিষেধ নেই ৷ যেকোনও বয়সী নারীপুরুষ এই ব্রত পালন করতে পারেন ৷

ব্রতপালনের একটাই মূল শর্ত হল‚ যিনি পালন করবেন‚ সেই ব্রতী এদিন টকজাতীয় কিচ্ছু খেতে পারবেন না ৷ প্রসাদেও টক খাবার যেন কিছু না থাকে ৷

আরও পড়ুন –বিধাননগর সেন্ট্রাল পার্কে এখনই প্রায় 25 হাজার সমর্থক, বেড়ে দাঁড়াবে 50 হাজারে

ষোল সপ্তাহ বা চারমাস পরে উদযাপন করতে হয় ব্রত ৷ ওইদিন একইভাবে পুজো করার পরে আটজন বালককে ডেকে ভোজন করাতে হয় ৷ নিজের পরিবারে না থাকলে পরিচিতদের থেকে নিমন্ত্রণ জানানো যায় বালকদের ৷ ভোজনের পরে তাদের বস্ত্র‚ ফল এবং দক্ষিণা দিতে পারেন ৷

মন্ত্র : ওঁ শ্রী সন্তোষী মহামায়ে গজানন্দম দায়িনী শুক্রবার প্রিয়ে দেবী নারায়ণী নমস্তুতে।

আরও পড়ুন –মহা-ব্রিগেডে যোগ দিতে শুক্রবারই শহরে পা রাখছেন বিজেপি-বিরোধী মহা-তারকারা