শহর সচল রাখতে শনিবার একাধিক ব্যবস্থা, রাস্তায় থাকবে 10 হাজার পুলিশ

এসবিবি : শনিবার শহরে থাকছেন একঝাঁক VVIP, থাকছেন লক্ষ লক্ষ মানুষ। সবার নিরাপত্তায় যাতে কোনও ফাঁক না থাকে, সেজন্য আঁটোসাঁটো ব্যবস্থা করেছে কলকাতা পুলিশ।

● দিল্লি বা অন্য রাজ্য থেকে আসা VVIP-দের যদি কোনও কারণে আসতে দেরি হয় অথবা কোনও কারণে দ্রুত বিমানবন্দরে যাওয়ার প্রয়োজন হয়, তারজন্য তৈরি থাকছে চপার ও হেলিপ্যাড।

● সুষ্ঠুভাবে পরিস্থিতি সামাল দিতে কলকাতা পুলিসের প্রায় 10 হাজার ফোর্স রাস্তায় থাকবে।

আরও পড়ুন- পুলিশ তৎপর থাকলেও মহাব্রিগেডের জেরে যানজট হতে পারে শহরে

● ব্রিগেডে ঢোকার জন্য 8টি প্রবেশপথ থাকছে।

● মূল মঞ্চে কারা বসবেন এবং তার পাশের মঞ্চগুলিতে কারা থাকবেন, তা নির্দিষ্ট হয়ে গিয়েছে। এই তালিকার বাইরে কাউকেই ঘেঁষতে দেওয়া হবেনা মঞ্চের কাছাকাছি।

● কোন মিছিল কোন প্রবেশপথ দিয়ে ঢুকবে, তাও ঠিক করে দেওয়া হয়েছে।

আরও পড়ুন- মহা-ব্রিগেডে যোগ দিতে শুক্রবারই শহরে পা রাখছেন বিজেপি-বিরোধী মহা-তারকারা

● ব্রিগেডে একাধিক VVIP থাকছেন, তাই তাঁদের নিরাপত্তায় আলাদা একটি সেল খোলা হয়েছে। এই সেল শুধুই VVIP-দের আসা-যাওয়া থেকে শুরু করে নিরাপত্তার বিষয়টি দেখভাল করবেন।

● মঞ্চের চারধার RAF ও কমান্ডোর দখলে থাকছে।

● ড্রোনের মাধ্যমে উপর থেকে চালানো হবে নজরদারি।

● মূল সভাস্থল ও সংলগ্ন এলাকায় নিশ্ছিদ্র নিরাপত্তার ব্যবস্থা রাখা হচ্ছে।

● পুলিস কমিশনার রাজীব কুমার ছাড়াও একাধিক ডেপুটি কমিশনার থাকছেন মূল সভাস্থল ও সংলগ্ন এলাকায়।

● শহরজুড়ে
থাকছেন অ্যাসিস্ট্যান্ট কমিশনার ও অন্যান্য পদমর্যাদার অফিসাররা।

আরও পড়ুন- গুজরাটে সিঙ্গাপুরের দলনেতা প্রসূন

● শুধু মূল মঞ্চই নয়, যে রাস্তা দিয়ে মিছিল আসবে, সেখানেও পর্যাপ্ত সংখ্যায় পুলিশ থাকছে।

● ইতিমধ্যেই সমাবেশের জন্য কর্মী- সমর্থকরা কলকাতায় আসতে শুরু করেছেন, তাই আজ, শুক্রবার, 18 তারিখ থেকেই নির্দিষ্ট সংখ্যক পুলিস রাস্তায় থাকবেন।

● দূর-দূরান্ত থেকে যাঁরা আসছেন, তাঁদের কোনও অসুবিধা না হয়, তা খেয়াল রাখবে পুলিশও।

● আগামী 48 ঘণ্টা শহরে থাকবে অতিরিক্ত ফোর্স।

● 19 জানুয়ারি ভোর থেকে রাস্তায় থাকবেন পদস্থ পুলিস কর্তারা।

আরও পড়ুন- ব্রেকফাস্ট নিউজ

● লালবাজারের কন্ট্রোল রুম থেকে চলবে টানা নজরদারি।

● ব্রিগেড চত্বরে থাকছে থাকছে একাধিক ওয়াচ টাওয়ার ও সিসিটিভি।

● গুরুত্বপূর্ণ রাস্তাতেও ওয়াচ টাওয়ারের মাধ্যমে নজর রাখবে পুলিস।

● শহরজুড়ে থাকছে 200 পুলিস পিকেট। থাখছে 15টি ডিএমজি টিম। রাখা হচ্ছে কুইক রেসপন্স টিম।

● সব সময় তৈরি থাকবে 25টি দমকল ও অ্যাম্বুল্যান্স।

আরও পড়ুন- ফের কাঠগড়ায় সৌম্যজিৎ, এবার অভিযোগ শারীরিক হেনস্থার