শাহজাহান রিজেন্সিতে চাঁদের হাট, গল্পের প্রতি বাঁকে রয়েছে চমক

এসবিবি : ‘উমা’, ‘এক যে ছিল রাজা’র পর মুক্তি পেল সৃজিত মুখোপাধ্যায়ের “শাহজাহান রিজেন্সি”। মহানায়ক অভিনীত চৌরঙ্গী’র রিমেক হলেও এই সিনেমার পরতে পরতে রয়েছে চমক। সেই সঙ্গে তাক লাগিয়ে দিয়েছেন এই সিনেমার অভিনেতা-অভিনেত্রীরা। সৃজিতের শাহজাহান রিজেন্সি মূলত একটি পাঁচতারা হোটেল। গল্পের কাহিনী গড়ে উঠেছে হোটেলের কর্মচারী ও অতিথিদের কেন্দ্র করে।

আরও পড়ুন –মার্চের প্রথমেই লোকসভা ভোটের দিনক্ষণ ঘোষনার সম্ভাবনা

মনিশংকর মুখোপাধ্যায়ের জনপ্রিয় উপন্যাস চৌরঙ্গীর ধাঁচে সিনেমাটি গড়ে উঠেছে ঠিকই। পার্থক্যের বিষয় হল এর পরিবর্তিত চিত্রনাট্য। মানবমনের বিভিন্ন স্তর ও তার পর্যায়কে সিনেমার পর্দায় ফুটিয়ে তুলেছেন পরিচালক। নির্দিষ্ট কোনও চরিত্রের বদলে এই সিনেমায় প্রাধান্য পেয়েছে বিভিন্ন ধরণের চরিত্রদের মেলবন্ধন। সিনেমাটিতে অভিনয় করেছেন অঞ্জন দত্ত, মমতা শংকর, আবির চট্টোপাধ্যায়, স্বস্তিকা মুখোপাধ্যায়, পরমব্রত চট্টোপাধ্যায়, অনির্বাণ ভট্টাচার্য ও ঋতুপর্ণা সেনগুপ্ত। এক ঝাঁক তারকাদের উপস্থিতিতে আলাদা মাত্রা পেয়েছে ফাইভ স্টার শাহজাহান রিজেন্সি। এঁদের মধ্যে অভিনয়ে দক্ষতা দেখানোর পাশাপাশি গান গেয়ে বাজিমাত করেছেন অনির্বান।

আরও পড়ুন –শিক্ষানবিশ-শিক্ষক নিয়োগ, এইচএস স্কেল লাগু করতে চান রাজ্যপাল

এই সিনেমায় মোট 4 টি গান রয়েছে। সুর দিয়েছেন অনুপম রায় ও প্রসেন। এক্ষেত্রেও সৃজিতের উপরি পাওনা। সুরকার হিসেবে এই সিনেমায় ডেবিউ করলেন প্রসেন।

আরও পড়ুন –শবরীমালায় এ পর্যন্ত 51 নিষিদ্ধ বয়সের মহিলা ঢুকেছেন, সুপ্রিম কোর্টে পিনারাই সরকার

শংকরের উপন্যাসে উল্লেখিত হোটেলের অন্দরমহলের সঙ্গে বর্তমানের হোটেলগুলির অনেক ফারাক। চৌরঙ্গী গল্পটি যখন লেখা হয়েছিল তখন শহরে অ্যাংলো-ইন্ডিয়ান সোসাইটির একটা প্রভাব ছিল। সেটা এখন নেই বলেই মার্কোপোলো চরিত্রকে মকরন্দ পাল করতে হয়েছে সৃজিতকে। যাঁর শেষ পরিণতি অধিকাংশ বাঙালি প্রতিষ্ঠানের মতো সব বেচে দিয়ে দূরে কোথাও সরে যাওয়া। সিনেমা অনুযায়ী এই মার্কোপোলো হল শাহজাহান রিজেন্সির ম্যানেজার। খুব স্মার্ট না হলেও ধুতি-পাঞ্জাবি পড়া স্মার্ট একজন ভদ্রলোক। যিনি রিসেপশনিস্ট সাতা বোস এবং বিমান সেবিকা সুজাতা মিত্রর প্রেমে পড়েন। এদিকে হোটেলের এক সেবিকা করবী গুহর পছন্দ ব্যবসায়ী অনিন্দ্য পাকরাশিকে। সিনেমায় আলাদাভাবে নজর কেড়েছে সুজয়প্রসাদ চট্টোপাধ্যায় অভিনীত নিত্যহরি চরিত্রটি। খিটখিটে স্বভাবের, শুচিবাই হাউসকিপিং ম্যানেজার। আর যার কথা না বললেই নয় তিনি হলেন মমতা শঙ্কর। একেবারে নতুন মোড়কে দর্শকদের কাছে ধরা দিয়েছেন তিনি। স্বস্তিকাকে বড়বরই সাহসী দৃশ্যে দেখতে পছন্দ করেন দর্শকরা। সেই মত শাহজাহান রিজেন্সিও বুঁদ হয়ে রয়েছে স্বস্তিকা জ্বরে। সব মিলিয়ে জমজমাট হয়ে উঠেছে শাহজাহান রিজেন্সি। বাকি গল্প জানতে হলে দেখতে হবে সিনেমাটি।

আরও পড়ুন –পান মশলার বিজ্ঞাপনে যুক্ত হওয়ায় ট্রোলড অনুষ্কা শর্মা