মালদহে মঙ্গলবার শাহি-সভা, সাফল্য নিয়ে উদ্বেগে বঙ্গ-বিজেপি

এসবিবি : বিজেপি’র সর্বভারতীয় সভাপতি অমিত শাহের মালদহে সভা করার কথা, আগামীকাল, মঙ্গলবার, 22 জানুয়ারি। বিজেপি’র তরফে ইতিমধ্যেই জানানো হয়েছে, লোকসভা ভোটের আগে এ রাজ্যে একাধিক সভা করবেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি ও জাতীয় সভাপতি অমিত শাহ৷ সেইমতোই সাজানো হয়েছে কর্মসূচি। অসুস্থতার কারনে শাহ-সভার দিনবদল করে মালদহের সভার তারিখ 22 জানুয়ারি।

আরও পড়ুন- কংগ্রেস টিকিটে লোকসভা ভোটে প্রার্থী হতে পারেন করিনা কাপুর খান

শনিবারের মেগা- ব্রিগেডের পর শাহি- সভা কতখানি জমবে, তা নিয়ে বঙ্গ-বিজেপির কপালে চিন্তার ভাঁজ। গেরুয়া শিবিরের খবর, দলের রাজ্য নেতাদের প্রবলভাবে চাপ দিচ্ছে দিল্লি, “ইজ্জতের প্রশ্ন, অমিতজির সভা চূড়ান্ত সফল করতেই হবে”। বঙ্গ-বিজেপি বুঝেছে,ব্রিগেডের ওই জমায়েত দেখার পর, যত ভীড়ই হোক, অমিত শাহের সভা তুলনায় অনেক ছোট হবেই। মিডিয়া এই লোক না হওয়াকেই প্রাধান্য দেবে। দিল্লিও যদি তেমন ভেবে বসে, সামলানো মুশকিল। শাহের সভা হালকা হলে, মুখ পুড়বে বাংলার নেতাদের। একই সঙ্গে বঙ্গ-নেতৃত্বের ওপর আস্থাও কমবে।

আরও পড়ুন- ব্রেকফাস্ট স্পোর্টস

বঙ্গ-বিজেপির টেনশন বাড়াচ্ছে শাহি-সভা নিয়ে কেন্দ্রীয় নেতৃত্বের অতিসক্রিয়তা।ফাঁপড়ে রাজ্য বিজেপি৷ কারন, দিল্লিতে যতই রাজা-উজির মেরে আসুক, রাজ্য নেতারা নিজেদের ওজন জানেন। ব্যক্তিগত ক্যারিশ্মায় ছোট মাঠ ভরাতেও তাঁরা পারবেন না। সেই অবস্থায় আগামিকাল মালদায় শাহের সভা সাফল্য ঘিরে খুবই উদ্বিগ্ন রাজ্য নেতারা। মোদি-শাহের সভার সঙ্গে মমতার সভার তুলনা টানলেই ফাঁপড়ে পড়তে হবে বঙ্গ-বিজেপিকে। তখন দুই সভার তফাতটা দিল্লি বুঝতেই চাইবেনা।

আরও পড়ুন- ব্রেকফাস্ট নিউজ