ডার্বি হারের পর ফের ধাক্কা বাগানে, গোকুলামের কাছেও আটকে গেল ডিকারা

এসবিবি স্পোর্টস: কোচবদলই সার হল বাগানের। ডার্বি হারের পর গোকুলামের কাছেও আটকে গেল বাগান। আই লিগ জয়ের স্বপ্ন আগেই ঘুচে গেছে বাগানের। এখন শুধু প্রথম চারের মধ্যে থেকে সম্মানরক্ষার পালা চলছে। সেখানও ব্যর্থতা বাগানের।নিজেদের পায়ে নিজেরাই কুড়ুল বসিয়ে একপ্রকার জেতা ম্যাচ ড্র করলেন খালিদ জামিলের ছেলেরা।

আরও পড়ুন- তৃণমূল সাংসদকে অকথ্য গালাগাল তৃণমূল কর্মীরই, গ্রেফতার করল পুলিশ

ম্যাচের শুরুতেই শিল্টন ডি সিলভার গোলে অনেকটাই অক্সিজেন পেয়ে যায় সবুজ-মেরুন। 18 মিনিটের মাথায় বাগানে গোল এনে দেন শিল্টন। কিন্তু হাসি বেশিক্ষণ ধরে রাখেতে পারেনি বাগান। শিল্টনের সমস্ত খাটনিতে জল ঢেলে দিলেন লালচনকিমা। মোহনবাগান এগিয়ে যাওয়ার মিনিট দুয়েক পরই তাঁর আত্মঘাতী গোলেই সমতায় ফেরে গোকুলাম। আর তারপরই আত্মবিশ্বাসে ভর করে সবুজ-মেরুন ডিফেন্ডারদের জোসেফ সত্যিই বুঝিয়ে দেন, তিনি কে। গোল শোধ করার পরেই 24 মিনিটে ফের গোল গোকুলামের। প্রথমার্ধে খেলার স্কোরলাইন 2-1।

আরও পড়ুন- “ওদের হাতে সিবিআই থাকলে আমার হাতে সিআইডি আছে”: মমতা

দ্বিতীয়ার্ধে বেশ খানিকটা চাপে থেকেই খেলা শুরু করে বাগান। লিগের একেবারে নীচে থাকা গোকুলাম এদিন যেন বাগানকে হালকাভাবেই নিয়েছিল। খেলায় সেই আর ঝাঁজ দেখা যায়নি। 60 মিনিটের মাথায় গোলে ডিকার গোলে সমতায় ফেরে বাগান। তবে এদিন ডিকা যেসব সুযোগ মিস করেন তাতে হতাশ বাগান সমর্থকেরা। ডার্বিতে হার যে কীভাবে গঙ্গাপারের ক্লাবের শিরদাঁড়া মচকে দিয়েছে তা খালিদ জামিলের বডি ল্যাঙ্গুয়েজেও স্পষ্ট। 15 ম্যাচে বাগানের পয়েন্ট মাত্র 22। জামিলের কোচিং নিয়ে যে আরও এক বড়সড় প্রশ্নচিহ্ন থেকে গেল তা আর বলার অপেক্ষা রাখে না।

আরও পড়ুন- অসমের কুখ্যাত বোড়ো জঙ্গি নেতার আমৃত্যু কারাদণ্ড