আজ কলকাতা বইমেলার উদ্বোধন করবেন মুখ্যমন্ত্রী

এসবিবি: বিশ্বের বৃহত্তম বইমেলা শুরু হতে বাকি আর মাত্র কয়েক ঘণ্টা। মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় আজ, বৃহস্পতিবার উদ্বোধন করতে চলেছেন কলকাতা বইমেলার। আজ থেকেই কার্যত সব পথ মিলে যাবে সল্টলেকের সেন্ট্রাল পার্কে। এবার কয়েকদিন শুধু বইয়ের গন্ধে মজে থাকার পালা।

দিন-রাত এক করে চলছে শেষ মুহূর্তের কাজ। বুধবারও দেখা যায় মেলায় বহু স্টল অসম্পূর্ণ। এবারের বইমেলায় থাকছে 600 বইয়ের স্টল ও 200 লিটল ম্যাগাজিনের স্টল।

আরও পড়ুন- তুষার যুগ ফিরছে ! বেনজির শৈত্যপ্রবাহের কবলে আমেরিকা

ব্যস্ততা তুঙ্গে বিধাননগর পুলিস কমিশনারেটেও। এই ক’দিন লক্ষ লক্ষ বইপ্রেমীর নিরাপত্তা ও পথ সচল রাখাও পুলিসের কাছে একটা চ্যালেঞ্জ।এবার বইমেলার নিরাপত্তা, অগ্নিনির্বাপণ ব্যবস্থা আরও আঁটোসাঁটো করা হয়েছে। পুলিসের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, বইমেলা আয়োজনের জন্য প্রায় 2 হাজার পুলিস মোতায়েন থাকবে। সিসিটিভি বসানো হয়েছে মাঠজুড়ে। এছাড়াও সল্টলেকের প্রতিটি মোড়ে সিসি ক্যামেরা লাগানো রয়েছে। পুলিস, পরিবহণ, দমকল সহ বিভিন্ন দপ্তরের ইউনিফায়েড কমান্ড কন্ট্রোল রুম করা হয়েছে। নজরদারির জন্য মোট 4টি ওয়াচ টাওয়ার থাকবে। মেলার মাঠকে নিরাপত্তার জন্য বিভিন্ন জোনে ভাগ করা হয়েছে। মেলার মাঠে সাদা পোশাকে পুলিস মোতায়েন থাকবে। প্রতিটি প্রবেশ পথেই ‘মে আই হেল্প ইউ’ ডেস্ক, পাবলিক অ্যাড্রেস সিস্টেম থাকবে। মেলার প্রবেশদ্বারের বাইরে ইতিমধ্যেই বড় স্ক্রিন লাগানো হয়েছে। বইমেলার ভিতরে চলা অনুষ্ঠান সেই স্ক্রিনে দেখা যাবে। যা এবারেই প্রথম বলে দাবি উদ্যোক্তাদের। কোন রুটের বাস কোথা থেকে পাওয়া যাবে, তা নিয়ে মেলা প্রাঙ্গণের বাইরে রাস্তায় হোর্ডিং।

আরও পড়ুন- বিরাটহীন ভারতের বিরাট বিপর্যয়

বাস দাঁড়াবে করুণাময়ী বাস টার্মিনাস ও ময়ূখভবনের কাছে। মেলার মাঠের ধারে রাস্তায় গাড়ি পার্কিং করা যাবে না। গাড়ি পার্কিংয়ের জন্য নির্দিষ্ট জায়গা করে দেওয়া হয়েছে। পুলিসের পক্ষ থেকে অনুরোধ করা হয়েছে, যেসব শিশু মেলায় আসবে, তাদের পকেটে অভিভাবকের নাম ও ফোন নম্বর লিখে রাখতে। যাতে কোনও কারণে হারিয়ে গেলে ওই শিশুদের পরিবারের কাছে ফিরিয়ে দেওয়া সহজ হয়। প্রতিদিন দুপুর 12টা থেকে রাত 8টা পর্যন্ত মেলা খোলা থাকবে। আগামী 11 ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত বইমেলা চলবে।

আরও পড়ুন- অন্তর্বর্তী বাজেটই শুক্রবার পেশ করবেন অন্তর্বর্তী অর্থমন্ত্রী পীযূষ গোয়েল

এবছর বইমেলার থিম দেশ গুয়েতেমালা।  উদ্বোধন অনুষ্ঠানে মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গেই মঞ্চে থাকবেন এবারের বিশেষ সম্মানিত অতিথি গুয়েতেমালার লেখক প্রফেসর উদা মোরালেস। থাকবেন লেখক শঙ্কর, গুয়েতেমালা ও রাশিয়ার রাষ্ট্রদূত, রাজ্যের একঝাঁক মন্ত্রী এবং লেখকরা।