ধর্ণামঞ্চে কীভাবে কর্মরত আইপিএসরা, উঠছে প্রশ্ন

এসবিবি: দেশ ও সংবিধান বাঁচাতে মোদি সরকারকে হঠানোর ডাক দিয়ে ধরনায় বসেছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।আর সেই রাজনৈতিক ধর্ণায় সায় দিয়ে বসে রাজীব কুমার সহ কর্মরত আইপিএস অফিসাররা।স্বভাবতই বিরোধীরা এই দৃশ্য দেখে প্রশ্ন তুলছেন, পুরোদস্তুর এক রাজনৈতিক কর্মসূচিতে পদে থাকা পুলিশ অফিসাররা কীভাবে সামিল হতে পারেন?এই ঘটনা কি সংবিধান বিরোধী নয়?প্রসঙ্গত, রাজীব কুমারের বাড়ি থেকে বেরিয়ে ধর্মতলায় ধরনায় বসে পড়েন মুখ্যমন্ত্রী।তাঁর বাঁদিকে তখন তৃণমূল নেতারা বসে আর ডানদিকে বসে কর্মরত আইপিএস অফিসাররা।ছিলেন ডিজি বীরেন্দ্র, কলকাতার নগরপাল রাজীব কুমার, সুরজিৎ করপুরকায়স্থ, অনুজ শর্মা, জ্ঞানবন্ত সিং ও কলকাতা পুলিশের আরও অনেক অফিসার।বিরোধীরা গোটা পরিস্থিতিকে স্বাধীনতার পর বেনজির ঘটনা বলে উল্লেখ করে প্রশ্ন তুলেছে, প্রধানমন্ত্রীকে হঠানোর ধর্ণামঞ্চে কী করে আইপিএস অফিসাররা হাজির থাকতে পারেন? সেইসঙ্গে প্রশ্ন, পুলিশ দিয়ে কর্তব্যরত সিবিআই অফিসারদের আটক করা এবং পুলিসকর্তাদের সঙ্গে নিয়ে মুখ্যমন্ত্রীর ধরনায় বসা কি সংবিধানসম্মত?

আরও পড়ুন- ধর্মতলার ‘সরকারি’ ধর্ণামঞ্চের খরচ কোন দফতর দিচ্ছে, উঠছে প্রশ্ন