সবার নজর এখন শিলংয়ের ওকল্যান্ডে CBI অফিসের দিকে

এসবিবি : নির্ঘন্ট মেনে শনিবার বেলা 11টার মধ্যেই শিলং-এর CBI দফতরে হাজির হয়েছেন কলকাতার নগরপাল রাজীব কুমার। ফলে, সবার নজর এখন শিলংয়ের ওকল্যান্ডে CBI-এর দুর্নীতি দমন শাখার অফিসের দিকে।

● CBI শনিবার সকাল 11টা নাগাদ রাজীব কুমারকে শিলংয়ের ওকল্যান্ডে CBI-এর দুর্নীতি দমন শাখার অফিসে হাজির থাকতে বলেছিলো।

● এদিন সকাল 10টা 47 মিনিটে মেঘালয় পুলিশেরই যোগাড় করে দেওয়া SUV-তে ছাই রঙের স্যুট পরে রাজীব কুমার যান শিলং-এর ওকল্যান্ডে CBI-এর অফিসে।

আরও পড়ুন –ফের উদ্বোধন হবে জলপাইগুড়ি সার্কিট বেঞ্চের, থাকবেন মুখ্যমন্ত্রী

● মেঘালয় পুলিশের গাড়ি ‘Y’ স্তরের নিরাপত্তা পাওয়া রাজীব কুমারকে এসকর্ট করে নিয়ে আসে CBI দফতরে।

● রাজীব কুমার CBI অফিসে যাওয়ার আগে ওই দফতরে যান তাঁর আইনজীবী তথা মিজোরামের প্রাক্তন অ্যাডভোকেট জেনারেল বিশ্বজিত দেব।

● জিজ্ঞাসাবাদ শুরুর আগেই CBI কর্তাদের দ্রুত জেরা-পর্ব শেষ করার অনুরোধ করেন রাজীব কুমারের আইনজীবী।

আরও পড়ুন –আজ শিলং-এ CBI- জেরার মুখে কলকাতা নগরপাল রাজীব কুমার

● রাজীব কুমারের আইনজীবী খোঁজ নেন, কোন পদমর্যাদার আধিকারিকরা এই প্রশ্নোত্তর পর্বে থাকবেন।

● রাজীব কুমারের আইনজীবী CBI অফিসারদের কাছে কলকাতায় রাজীব কুমারের ব্যস্ততার কথা বলেন। বলেন, সরস্বতী পুজো এবং মাধ্যমিক পরীক্ষার জন্য নগরপালের কলকাতায় থাকা প্রয়োজন।

● CBI-এর তরফে তাঁকে এ বিষয়ে কোনও নিশ্চয়তাই দেওয়া হয়নি।

আরও পড়ুন –সিবিআই কর্তার স্ত্রীর সংস্থায় কলকাতা পুলিশের তল্লাশি

● শিলং-এ নগরপালের সঙ্গী কলকাতা পুলিশের অন্য দুই কর্তা, মুরলীধর শর্মা এবং জাভেদ শামিম। এছাড়াও আছেন রাজীব কুমারের দুই আইনজীবী।

● CBI দফতরে
রাজীব কুমার পৌঁছনোর পর সেখানে থাকা অফিসারদের সঙ্গে সৌজন্য-বিনিময় করেন।

● CBI অফিসাররা চা খাওয়ান রাজীব কুমার ও তাঁর চার সঙ্গীকে।

আরও পড়ুন –কমরেড কাঞ্চনের অকালমৃত্যু, কুণাল ঘোষের কলম

● চা-পানের পর জেরা-পর্ব শুরুর আগে রাজীব কুমারের সঙ্গী দুই পুলিশ কর্তা ও আইনজীবীদের CBI দফতর ছেড়ে চলে যেতে অনুরোধ করা হয়।

● তাঁরা সওয়া 12টা নাগাদ বেরিয়ে যান।

● চা-পর্বের স‌ময়ে স্বয়ং রাজীব কুমার প্রশ্নোত্তর পর্ব দ্রুত শেষ করতে CBI অফিসারদের অনুরোধ করেন। বলেন, কলকাতায় তাঁর ব্যস্ততার কথা।

● CBI-এর তরফে এই অনুরোধের কোনও ইতিবাচক উত্তর দেওয়া হয়নি বলে সূত্রের খবর।

● CBI সূত্রে জানা গিয়েছে, জেরা-পর্বে
রাজীব কুমারের বয়ান রেকর্ড করার সময় হাজির আছেন প্রায় 8 থেকে 10 জন বিভিন্ন পদমর্যাদার CBI অফিসার।

আরও পড়ুন –শিলং এ CBI-র মুখোমুখি রাজীব কুমার, চলছে বয়ান রেকর্ডের প্রক্রিয়া

● জেরা-পর্বে তদন্তকারী অফিসার তথাগত বর্ধন ছাড়াও রয়েছেন CBI-এর দিল্লি থেকে আসা বিশেষ দলের SP জগরূপ এস গুসিনহা এবং ভিএম মিত্তল।

● জেরায় আছেন সারদা-তদন্তের দায়িত্বে থাকা CBI-এর EOW-4 এর SP পিএস কল্যাণ। জানা গিয়েছে,
সারদা-রিয়েলটি মামলার সূত্রেই পিএস কল্যাণকে শিলং-এ আনা হয়েছে।

● সেই মামলার সূত্র ধরেই প্রশ্নোত্তর পর্ব শুরু হয়েছে বলে জানা গিয়েছে।

● জানা গিয়েছে, রাজীব কুমারের বিরুদ্ধে যে একগুচ্ছ অভিযোগ নিয়ে শীর্ষ আদালতে হলফনামা পেশ করেছিলেন CBI-এর SP পার্থ মুখোপাধ্যায়, সেই অভিযোগগুলি নিয়েই চলছে জেরা।

আরও পড়ুন – বিধানসভার ঝাড়ুদার হতে আবেদন ইঞ্জিনিয়ারদের

● জানা গিয়েছে,
রাজীব কুমারকে
প্রশ্ন করা হয়েছে, জম্মু-কাশ্মীর পুলিশের কাছ থেকে পাওয়া সারদা-কর্তা সুদীপ্ত সেন এবং দেবযানী মুখোপাধ্যায়ের ল্যাপটপ, পেনড্রাইভ নিয়ে।

● CBI প্রশ্ন করেছে, ওই জিনিসগুলি বার বার চাওয়া সত্ত্বেও কেন রাজ্য পুলিশের কাছ থেকে CBI পায়নি ।

● প্রশ্ন করার সময়
CBI সুনির্দিষ্টভাবে বলেছে, রাজ্য সরকারের গঠিত SIT বা বিশেষ তদন্তকারী দলের সক্রিয় অফিসার হিসাবে রাজীব কুমার ওই তথ্য-প্রমাণ নষ্ট করেছেন।

● রোজভ্যালি গোষ্ঠীর বিরুদ্ধে দুর্গাপুরের থানায় করা FIR কেন SIT গোপন করেছে, এই প্রশ্নও CBI করেছে রাজীব কুমারকে।

● শনিবার বেলা সাড়ে 12 নাগাদ শুরু হওয়া জেরা-পর্ব কত ক্ষণে বা কত দিনে শেষ হবে, তা CBI এখনও নির্দিষ্টভাবে জানায়নি।

আরও পড়ুন –NRS-এ শিশু মৃত্যু, প্রশ্নের মুখে চিকিত্সা ব্যবস্থা

● সূত্র মারফত জানা গিয়েছে, রাজীব কুমারের দেওয়া শনিবারের বয়ান অন্যদের বয়ানের সঙ্গে মিলিয়ে দেখা হবে।

● CBI-এর এই বক্তব্য বিশেষ গুরুত্বপূর্ণ। কারণ, রবিবারই শিলংয়ে CBI দফতরে ডাকা হয়েছে তৃণমূলের প্রাক্তন সাংসদ কুণাল ঘোষকে। জল্পনা, আরও দু-একজন রবিবার শিলং-এ পা রাখছেন।

● প্রসঙ্গত, CBI নয়, রাজীব কুমারের নেতৃত্বাধীন SIT-ই গ্রেফতার করেছিল কুণাল ঘোষকে।

● ওদিকে CBI-এর ডাক পেয়ে কিছুক্ষণ আগে শিলং পৌঁছে গিয়েছেন প্রাক্তণ সাংসদ কুণাল ঘোষ এবং তাঁর আইনজীবী অয়ন চক্রবর্তী।

আরও পড়ুন –ব্রেকফাস্ট নিউজ