নদিয়ার তৃণমূল বিধায়ক সত্যজিৎ বিশ্বাসকে গুলি করে খুন

এসবিবি : নদীয়া জেলা তৃণমূল যুব কংগ্রেসের সভাপতি তথা বিধায়ক সত্যজিৎ বিশ্বাসকে পয়েন্ট ব্ল্যাঙ্ক-রেঞ্জে গুলি করে খুন করল দুষ্কৃতীরা। শনিবার সন্ধ্যায় মাঝদিয়ার ফুলবাড়ি এলাকায় সত্যজিৎ বিশ্বাসকে লক্ষ্য করে গুলি ছোড়ে দুষ্কৃতীরা। শক্তিনগর হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হলে সঙ্গে সঙ্গেই চিকিৎসকরা তাঁকে মৃত বলে ঘোষণা করেন।
ফুলবাড়ি এলাকায় একটি বড় বাজেটের সরস্বতী পুজোর উদ্বোধন করতে গেছিলেন কৃষ্ণগঞ্জের দু’বারের বিধায়ক। সেখানেই দুষ্কৃতীরা মতুয়া সম্প্রদায়ের এই জনপ্রতিনিধিকে লক্ষ্য করে গুলি চালানো হয় বলে জানিয়েছেন প্রত্যক্ষদর্শীরা। ঘটনাস্থলেই লুটিয়ে পড়েন তিনি। তাঁকে শক্তিনগর হাসপাতালে নিয়ে যান তৃণমূলের কর্মী-সমর্থকরাই। কিন্তু বাঁচানো যায়নি তরুন এই বিধায়ককে। খবর ছড়িয়ে পড়তেই তীব্র উত্তেজনা ছড়ায় কার্যত নদিয়া জেলাজুড়েই। কারা এবং কেন তৃণমূল বিধায়ককে এভাবে খুন করলো,তার তদন্তে নেমেছে পুলিশ।

2014 সালে কৃষ্ণগঞ্জের বিধায়ক সুশীল বিশ্বাসের মৃত্যু হলে উপনির্বাচনে তরুন সত্যজিৎ বিশ্বাসকে প্রার্থী করে তৃণমূল এবং তিনি জয়ী হন। 2016 সালে ফের প্রার্থী হয়ে সহজেই জয়ী হন তিনি। লোকসভা নির্বাচনের মুখে যুব তৃণমূলের জেলা সভাপতির এই মৃত্যু তৃণমূল কংগ্রেসের কাছে বড় ধাক্কা। জেলা তৃণমূলের তরফে এই ঘটনার দায় বিজেপির ওপর চাপানো হয়েছে। অনেকের ধারনা, তৃণমূলের গোষ্ঠী-কোন্দলের জেরেই এই খুন।