ছক কষেই কি বিধায়ক- খুন? এমনই সন্দেহ CID-র

এসবিবি : রীতিমতো ছক কষেই কি খুন করা হয়েছে তৃণমূল বিধায়ক সত্যজিৎ বিশ্বাসকে ? এমনই সন্দেহ তদন্তকারী CID-র ৷ শনিবার রাতে নদিয়ার কৃষ্ণগঞ্জের তৃণমূল বিধায়ক সত্যজিত বিশ্বাস খুনের তদন্তে নেমে CID-র এমনই ধারনা।

ফুলবাড়ি এলাকায় নিজের ক্লাবের সরস্বতী পুজোর উদ্বোধন করতে গিয়েছিলেন বিধায়ক সত্যজিত বিশ্বাস। সেই অনুষ্ঠানের মধ্যেই তাঁকে পয়েন্ট ব্ল্যাঙ্ক রেঞ্জ থেকে গুলি করা হয়।

আরও পড়ুন –সরস্বতী পুজোয় সোমবার ছুটি ঘোষণা করল রাজ্য

তদন্তে নেমে চাঞ্চল্যকর বেশ কিছু তথ্য CID-র হাতে এসেছে। উঠে এসেছে বেশ কিছু প্রশ্নও।

● খুবই জনপ্রিয় বিধায়ক ছিলেন সত্যজিৎ। দক্ষ সংগঠক হিসাবেও সুনাম ছিলো। তাই এক অনুষ্ঠানে শ’য়ে শ’য়ে মানুষের উপস্থিতিতে একজন জনপ্রিয় বিধায়কের এভাবে খুন হয়ে যাওয়ার ঘটনায় স্তম্ভিত পুলিশও।

● স্থানীয় বাসিন্দাদের একাংশ CID-কে জানিয়েছে, পরিকল্পনামাফিক এদিন ঘটানো হচ্ছিল লোড শেডিং। আট ঘন্টায় সাতবার লোড শেডিং হয়েছিলো। বারবার আসছিলো- যাচ্ছিলো আলো। স্বল্প সময়ের লোডশেডিং। হঠাৎ লোডশেডিং- এ চারপাশ অন্ধকার নেমে আসে। একটু পর পরই আবার ফিরে আসে আলো। এ ঘটনা ঘটেছে 7-8 বার।

আরও পড়ুন –ব্রেকফাস্ট স্পোর্টস

● খুনের সুযোগ নেওয়ার জন্যই ওভাবে বারবার বিদ্যুৎ সরবরাহ বন্ধ করে দেওয়া হচ্ছিল কিনা তা নিয়ে সন্দেহ থেকে যাচ্ছে।

● বিধায়ক খুনের ঘটনায় বেশকিছু বিষয় উঠে এসেছে। এর মধ্যে একটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হলো, কয়েকদিন ছুটিতে ছিলেন সত্যজিতের সরকারি দেহরক্ষী। মনে করা হচ্ছে, সেই সুযোগই নিয়েছিল আততায়ী। অথবা জেনেশুনেই ছুটি নিয়েছিলেন ওই দেহরক্ষী। এই দেহরক্ষীকে সাসপেণ্ড করা হয়েছে। তদন্ত শুরু হয়েছে এই দেহরক্ষীকে নিয়েও।

● প্রকাশ্যে বহু মানুষের সামনে এইভাবে বিধায়ক খুনের ঘটনায় চিন্তিত পুলিশও। পয়েন্ট ব্ল্যাঙ্ক রেঞ্জ থেকে সত্যজিত বিশ্বাসকে গুলি করেই পালিয়ে যায় আততায়ীরা।
প্রত্যক্ষদর্শীরা CID-কে বলেছেন, আগ্নেয়াস্ত্র ফেলে সকলের সামনে থেকেই পালিয়ে যায় আততায়ীরা।

আরও পড়ুন –তৃণমূল বিধায়ক খুনের তদন্তভার দ্রুত দেওয়া হল CID-র হাতে

● আততায়ীর খোঁজে স্থানীয় বাসিন্দাদের মোবাইল ফুটেজও ভরসা রাখছে পুলিশ। পাড়ার সরস্বতী পুজোর অনুষ্ঠান ছিলো, তাই এদিন স্থানীয় বহু মানুষ মোবাইলে ছবি তুলছিলেন বলে পুলিশের আশা। কেউ কেউ আবার অনুষ্ঠানের মুহূর্ত ভিডিও করে রেখেছেন। সেইসব ছবি বা ভিডিও থেকেও তদন্তে সহায়তা করার মতো কোনও ফুটেজ পাওয়া যায় কি না তাও দেখছে পুলিশ।

● সত্যজিৎ বিশ্বাস খুনের ঘটনায় রাতেই 4 জনকে আটক করা হয়। এদের একজনের নাম অভিজিত পুন্ডারি। শনিবার রাতেই তার বাড়ি ভাঙচুর করেছে স্থানীয় মানুষ। এদের টানা জেরার পর 2 জনকে গ্রেফতার করেছে পুলিস। একজন জেরায় ভেঙ্গে পড়ে অনেককিছুই স্বীকার করেছেন একজন।

আরও পড়ুন –তথ্যপাচারের অভিযোগে গ্রেফতার পুলিশ আধিকারিক

● ঘটনার জেরে সরিয়ে দেওয়া হয়েছে হাঁসখালি থানার ওসি অনিন্দ্য বসুকে।

● বিধায়ক খুনের ঘটনায় ইতিমধ্যেই গ্রেফতার করা হয়েছে দুজনকে। কার্তিক মণ্ডল ও সুজিত মণ্ডল নামের এই দুজনকে ম্যারাথন জেরা করছে পুলিস।

● খুনের ধরন ও পারিপাশ্বিক কিছু ঘটনা দেখে এটিকে পরিকল্পনা মাফিক খুন বলে CID মনে করছে।

● ঘটনাস্থল থেকে কিছু দূরেই পাওয়া গিয়েছে একটি ওয়ান শর্টার বন্দুক। সেটিকে পরীক্ষার জন্য পাঠানো হয়েছে।

● এই ঘটনায় বিজেপির দিকেই আঙুল তুলছে তৃণমূল। তৃণমূল বিধায়ক খুনে নাম না করে বিজেপি নেতা মুকুল রায়কে কাঠগড়ায় তুলেছেন তৃণমূলের মহাসচিব পার্থ চট্টোপাধ্যায়।

● অন্যদিকে, ঘটনার পেছনে তৃণমূলের গোষ্ঠী দ্বন্দ্বকেই দায়ি করছে বিজেপি। মাটি মাফিয়াদের কোন্দলের শিকার হয়েছেন সত্যজিৎ, এমনটাই দাবি করেছেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ।
● ইতিমধ্যেই বিজেপি নেতা মুকুল রায় সহ মোট 4 জনের বিরুদ্ধে FIR করা হয়েছে।

আরও পড়ুন –স্টেট ব্যাঙ্ক কার হাতে ?