ভাষা-শহিদদের শ্রদ্ধা জানালেন মুখ্যমন্ত্রী, বিমান বসু, শঙ্খ ঘোষ

মদন মোহন সামন্ত : “আমার ভাইয়ের রক্তে রাঙানো একুশে ফেব্রুয়ারি….”। আজকের বাংলাদেশ যখন পাকিস্তানি শাসনে, তখনই পাক- শাসকের সিদ্ধান্তে রাষ্ট্রভাষা হিসেবে উর্দু-কে চাপিয়ে দেওয়ার চেষ্টা চলেছিলো। এই সিদ্ধান্তের প্রতিবাদে 1952 সালের এই দিনে বাঙালির ভাষা রক্ষা করার আন্দোলনে বাংলাকে রাষ্ট্রভাষা হিসেবে স্বীকৃতি দেওয়ার দাবিতে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে প্রতিবাদী ভাষা আন্দোলনে পুলিশ গুলি চালালে 5 জনের মৃত্যু হয়। বাংলাভাষা রক্ষার এই আন্দোলনকে স্বীকৃতি দিতে 1999 এর 17 নভেম্বর প্যারিসে আয়োজিত ইউনেস্কোর 30 তম অধিবেশনে 21 ফেব্রুয়ারি দিনটিকে “আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস” হিসেবে মর্যাদা দেওয়া হয়। 2000 সাল থেকেই বিশ্বের 188 টি দেশ আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালন করে।

একুশে ফেব্রুয়ারির ভাষা-শহিদ স্মরণ ও “আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস” উপলক্ষে আজ, বৃহস্পতিবার, ‘একুশে উদ্যানে’ এক অনুষ্ঠানের মাধ্যমে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় সহ অন্যান্য মন্ত্রী ও বিশিষ্টজনরা আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসে ভাষা-শহিদ স্মারকে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন। ছিলেন বিশিষ্ট শিল্পী যোগেন চৌধুরি, মেয়র ফিরহাদ হাকিম। নবান্নেও এক অনুষ্ঠানে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন মুখ্যমন্ত্রী।

আরও পড়ুন- ঘোলার বিধ্বংসী অগ্নিকাণ্ডে ধৃত কারখানার মালিক

এদিন ‘ভাষা উদ্যান’-এ শ্রদ্ধা জানাতে যান প্রখ্যাত কবি শঙ্খ ঘোষ। এছাড়াও বামফ্রন্টের চেয়ারম্যান বিমান বসু, স্বপন বন্দ্যোপাধ্যায়, ক্ষিতি গোস্বামী, মনোজ ভট্টাচার্য-সহ নেতানেত্রী ও শিল্পী- কলাকুশলীরা আলাদা আলাদাভাবে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন।এখানে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ দূতাবাসের মহম্মদ ইকবাল।

ছবি : মদন মোহন সামন্ত

আরও পড়ুন – প্ররোচনা উড়িয়ে বাংলা ভাষা ও সংস্কৃতি রক্ষা করতে হবে