সুপার কাপ খেলবে না ইস্ট-মোহন!

এসবিবি স্পোর্টস: চরম সংকটে সুপার কাপ। আই লিগের ক্লাবগুলির প্রতি এআইএফএফ-র বৈমাত্রীসুলভ আচরণের অভিযোগে সুপার কাপ বয়কট করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে ইস্ট-মোহন সহ আই লিগের সাতটি ক্লাবের জোট। ফেডারেশন অবশ্য দাবি মানার পথে না গিয়ে সিদ্ধান্ত নিতে চলেছে, তেমন হলে বাতিল করে দেওয়া হবে এই মরশুমের সুপার কাপ। তবুও মাথা নোয়াবে না।

আরও পড়ুন- বৈশাখীকে পাশে নিয়ে কী তোপ দাগলেন শোভন ?

ক্লাবগুলির দীর্ঘদিনের অভিযোগ, ভারতীয় ফুটবলের সর্বময় সংস্থার কর্তাদের সঙ্গে বৈঠকে বসার অনুরোধ করলেও সেই আর্জিতে কোনও ফল দেয়নি। ফেডারেশনের পক্ষ থেকে চিঠির সৌজন্যমূলক প্রাপ্তিস্বীকারেরও কোনও উল্লেখ করা হয়নি বলে ক্লাবগুলির অভিযোগ। সেকারণে এবার ফেডারেশনের বিরুদ্ধে বিদ্রোহ ঘোষণা করে একজোট আই লিগের হেভিওয়েটরা।

আরও পড়ুন- “তৃণমূল 42টি আসন নিয়ে ভাবে তাই প্রার্থী তালিকায় তাড়াহুড়ো, বিজেপি ভাবে গোটা দেশ নিয়ে”

আই লিগ চলাকালীন 18 ফেব্রুয়ারি আই লিগকে বাঁচাতে মোহনবাগান-ইস্টবেঙ্গলের সঙ্গে চেন্নাই সিটি এফসি, মিনার্ভা পঞ্জাব এফসি, চার্চিল ব্রাদার্স, নেরোকা এফসি, গোকুলাম কেরালা, আইজল এফসি সহ আই লিগের আটটি ক্লাব চিঠি দেয় ফেডারেশন সভাপতি প্রফুল প্যাটেলকে। এমনকি ফেডারেশন সভাপতির সঙ্গে বৈঠক করার জন্য সময়ও চেয়ে নেয় তারা। কলকাতার দুই প্রধান প্রথমেই জানিয়ে দেয় ফ্র্যাঞ্চাইজি ফি দিয়ে তারা আইএসএলে খেলবে না। আই লিগ-আইএসএল দুই লিগ মিলিয়ে একটা লিগ করার জন্য একসঙ্গে সওয়াল করে আই লিগের আটটি ক্লাব। যেখানে থাকবে প্রমোশন এবং রেলিগেশন।

আরও পড়ুন- ত্রিপুরার 2টি লোকসভা আসনে প্রার্থী ঘোষণা বামফ্রন্টের

প্রফুল প্যাটেলের সঙ্গে আই লিগ-আইএসএল নিয়ে জট কাটাতে সরাসরি কথা বলতে চায় তারা। কিন্তু, এআইএফএফ সভাপতির জবাবি মেল এখনও আসেনি। পাশাপাশি এই নক আউট প্রতিযোগিতায় খেলে এএফসি-র কোনও প্রতিযোগিতায় খেলার ছাড়পত্র মেলে না। শুধু তাই নয় এই প্রতিযোগিতায় খেলার জন্য যাবতীয় খরচা ক্লাবগুলিকেই বহন করতে হয়। আর সেই কারণেই সুপার কাপ থেকে নাম তুলে নেওয়ার সিদ্ধান্ত নিল 7টি ক্লাব। তবে এই দলে নেই রিয়াল কাশ্মীর, চার্চিল ব্রাদার্স এবং শিলং লাজং এফসি।

আরও পড়ুন- বৃষ্টিতেও মিলবে না স্বস্তি, বাড়বে গরম