লোকসভার টিকিট না পেয়ে হাতের শিরা কাটলেন এই জনপ্রিয় বিধায়ক! অতঃপর

এসবিবি: লোকসভার টিকিট বন্টন নিয়ে দেশের প্রায় প্রতিটি বড় রাজনৈতিক দল অস্বস্তিতে পড়েছে। সকলকে টিকিট দেওয়া সম্ভব নয়, আর যাঁরা টিকিট পাচ্ছেন না তাঁরা অনেকেই অন্য দলে যোগ দিচ্ছেন। কিন্তু টিকিট না পাওয়ার আশঙ্কায় এই জনপ্রিয় বিধায়ক যে কাণ্ড ঘটলেন, তা এক কথায় নজির বিহীন। লোকসভা ভোটে তিনি সম্ভবত টিকিট পাচ্ছেন না, এমন খবর পাওয়ার পর অভিমানে আত্মহত্যার চেষ্টা করলেন অন্ধ্রপ্রদেশের এক বিধায়ক। শুধু তাই নয়, আত্মহত্যার চেষ্টার ভিডিও পাঠালেন দলের শীর্ষ নেতার কাছে।

আরও পড়ুন –মুখ্যমন্ত্রীর পাড়ার দেওয়ালেই লাইন দিয়ে ফুটেছে পদ্মফুল

পেশায় চিকিত্সক ও ওয়াইএসআর কংগ্রেসের বিধায়ক এম সুনীল কুমারের কাছে জানতে পেরেছিলেন, দল তাঁকে লোকসভা নির্বাচনে টিকিট দেবে না। এতে তিনি মানসিক অবসাদে ভুগতে শুরু করেন। আর হতাশাগ্রস্থ হয়ে তিনি মারাত্মক ঘটনা ঘটিয়ে ফেলেন। ছুরি দিয়ে হাতের কব্জির শিরা কাটে ফেলেন। এবং সেই ভয়ঙ্কর দৃশ্য ক্যামেরাবন্দি করে আত্মহত্যার চেষ্টার ভিডিও তিনি সোস্যাল মিডিয়ায় আপলোড করে দেন।

আরও পড়ুন –ফের শিরোনামে সব্যসাচী দত্ত, দলের নির্বাচনী বৈঠকেও গরহাজির

বছর পঞ্চাশের সুনীল ওই ভিডিওটিতে দলের সুপ্রিমো জগন মোহন রেড্ডির দৃষ্টি আকর্ষণ করার চেষ্টা করেছেন। ভিডিওতে তাঁকে বলতে শোনা যায়, “জগন স্যার, শুনছি আমাকে এবার নির্বাচনে টিকিট দেওয়া হবে না। গত পাঁচ বছর ধরে আপনাকে অনুসরণ করে চলেছি। এখন এসব শুনিছ। মৃত্যুর আগে আপনার দৃষ্টি আকর্ষণ করার চেষ্টা করছি।”

আরও পড়ুন –অভিনেতা চিন্ময় রায় প্রয়াত

শিরা কাটলেও আপাতত বিপদমুক্ত সুনীল কুমার। তাঁর স্ত্রী পুলিশকে জানিয়েছেন, টিকিট না পাওয়ার খবর পেয়ে মানসিক অবসাদে ভুগতে শুরু করেন সুনীল। রাজনৈতিক জীবন অনিশ্চিত বুঝতে পেরে উনি চরম পদক্ষেপ নেন।

উল্লেখ্য, চন্দ্রবাবু নাইডু শিবিরের সঙ্গে ঘনিষ্টতা বাড়ানোয় সুনীল কুমারকে কোণঠাসা করে দেয় দল। এতেই চাপে পড়ে যান সুনীল। সেইসঙ্গে তাঁকে টিকিট না দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

আরও পড়ুন –দলবদলের আবহে সোমবার ‘বৃহত্তম বিস্ফোরণ’ ঘটাতে চলেছে বিজেপি, জল্পনা