জেলে যাওয়ার হাত থেকে বাঁচালেন দাদা মুকেশ, আবেগতাড়িত ভাই অনিল জানালেন কৃতজ্ঞতা

এসবিবি: দুঃসময়ে পাশে এসে দাঁড়িয়েছেন দাদা। বাড়িয়ে দিয়েছেন সাহায্যের হাত। আর তাই জেলযাত্রার দুর্ভোগ থেকে বেঁচে গেলেন ভাই। কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করে ভাই প্রকাশ্য বিবৃতি দিয়ে ধন্যবাদ জানিয়েছেন দাদা-বউদিকে। তুলে ধরেছেন পারিবারিক মূল্যবোধের কথা। এই ভাই হলেন অনিল আম্বানি এবং দাদা মুকেশ আম্বানি।

সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশে সময়সীমা শেষ হওয়ার একদিন আগে এরিকসন সংস্থাকে সুদ সহ 550 কোটি টাকার দেনা শোধ করল অনিল আম্বানির রিলায়েন্স কমিউনিকেশন। সর্বোচ্চ আদালত অনিলকে বলেছিল হয় টাকা মেটান, না হলে জেলে যাওয়ার জন্য তৈরি হোন। আপাতত আর জেলে যেতে হচ্ছে না অনিলকে। কারণ তাঁর দাদা, দেশের একনম্বর শিল্পপতি মুকেশ আম্বানি ভাইকে অর্থ দিয়ে সাহায্য করে অবধারিত জেলযাত্রা থেকে বাঁচিয়েছেন। আর তারপরই প্রকাশ্য বিবৃতি দিয়ে দাদা মুকেশ ও বউদি নীতা আম্বানিকে ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানিয়েছেন সাম্প্রতিক রাফাল বিতর্কের কেন্দ্রে থাকা অনিল। বলেছেন ওঁদের সময়োচিত পদক্ষেপে তিনি আপ্লুত। ওঁদের সিদ্ধান্ত পারিবারিক বন্ধন ও মূল্যবোধকে যেভাবে তুলে ধরেছে, তা তাঁর কাছে এক হৃদয়স্পর্শী ঘটনা।

অতীতের তিক্ততা ভুলে দুই শিল্পপতি ভাইয়ের কাছাকাছি আসার এই ছবি সম্ভবত দেশের শিল্পমহলের কাছেও স্বস্তির।