পড়ুয়া ভর্তি স্কুল বাস জ্বালিয়ে দিল চালক!

এসবিবি :  মাঝ রাস্তায় জ্বলছে স্কুল বাস।  ভিতর থেকে পড়ুয়াদের আর্তনাদ।  অভিযোগ পড়ুয়া বোঝায় বাসে আগুন লাগিয়েছে চালক! বৃহস্পতিবার ইতালির মিলানের এই ঘটনায় শেষমেশ অক্ষত উদ্ধার করা গেছে শিশুদের। তবে অনেকেই ধোঁয়া ও তাপে গুরুতর অসুস্থ।

জানা গিয়েছে আজ স্কুল থেকে ঘুরতে নিয়ে যাওয়ার কথা ছিল খুদে পড়ুয়াদের। সেই মতোই কলকল করতে করতে বাসে উঠেও পড়েছিল সকলে। বয়স পাঁচ থেকে দশ। সংখ্যায় তারা 51 জন। গোটা বাসটা যেন ঝলমল করছিল ছোট ছোট শিশুদের উজ্জ্বল মুখে আর কচি গলার আওয়াজে।

আরও পড়ুন- প্রিয়রঞ্জন-ঘনিষ্ঠ বাবলু দে প্রয়াত

আচমকা থেমে গেল বাস। কী হয়েছে বোঝার আগেই চালক উঠে এল আসন থেকে। বড় একটা দড়ি দিয়ে বেঁধে ফেলল বাচ্চাদের। কেঁদে উঠল অনেকে। তার পরেই বাস থেকে নেমে দরজা বন্ধ করে, সেই বাসে আগুন ধরিয়ে দিল চালক! 51টি শিশুকে বাসে বন্দি রেখে জ্বালিয়ে দিল বাস!

ভয়াবহ এই ঘটনায় শিউরে ওঠেন স্থানীয় প্রত্যক্ষদর্শীরা। ছুটে আসেন স্থানীয় বাসিন্দারা। তাঁদের উদ্যোগে কোনও রকমে রক্ষা পায় শিশুরা। কয়েক জন অসুস্থ হয়ে পড়লেও, প্রাণে বেঁচে গিয়েছে সকলে। এক শিক্ষিকাও ছিলেন শিশুদের সঙ্গে। আটকে পড়েন তিনিও।

পুলিশ জানিয়েছে, স্কুলবাসটির অভিযুক্ত চালক সেনেগালের বাসিন্দা। এ দিন শিশুদের নিয়ে এক জায়গা থেকে আর এক জায়গায় যাওয়ার সময়ে এই ভয়াবহ কাণ্ড ঘটায় ওই ব্যক্তি। শেষ পর্যন্ত স্থানীয়রা তত্‍পর হয়ে ছুটে গিয়ে শিশুদের উদ্ধার করেন।

আরও পড়ুন- নাচেগানে প্রভাতফেরিতে রামমোহন সম্মিলনী

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছেন, বাসের কাছে গিয়ে দেখা যায়, ভিতরে শিশুদের বেঁধে রাখা হয়েছে। বেঁধে রাখা হয়েছে এক শিক্ষিকাকেও। দরজা, জানলা বন্ধ। এর পরই বাইরে থেকে জানলা ভেঙে শিশুদের উদ্ধার করেন তাঁরা। বাসভর্তি ধোঁয়ার জেরে দমবন্ধকর পরিস্থিতি তৈরি হয়। ফলে অনেকেই অসুস্থ হয়ে পড়ে।
47 বছর বয়সি ওই চালক ধরা পড়ার পরে বলে থাকে, “কেউ বাঁচবে না।” ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ।

আরও পড়ুন- আজ ট্রেলার, আসল দোল তো 23 মে, মন্তব্য দাপুটে অর্জুন সিং-এর