রইল না বাধা, ভোট চলাকালীন মুক্তি পাচ্ছে ‘বাঘিনী’

এসবিবি :  প্রতিক্ষার অবসান। অবশেষে পর্দায় আসছে ‘বাঘিনী’। নির্বাচনের আবহেই এই ছবি মুক্তির কথা আগেই জানিয়েছিলেন প্রযোজক। কিন্তু আটকে ছিল ছবি। মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের জীবনী নিয়ে তৈরি এই ছবি মুক্তির ছাড়পত্র নির্বাচনের মধ্যে মিলবে কি না, তা নিয়ে প্রশ্ন উঠেছিল। কিন্তু অবশেষে সেন্সর থেকে মুক্তির ছাড়পত্র পেল ছবিটি। আগামী 3 মে পর্দায় আসছে ‘বাঘিনী’।

 

আরও পড়ুন-বাঁকুড়ায় প্রবেশের অনুমতি পেলেন সৌমিত্র! কতদিনের জন্য জানেন?

নেহাল দত্ত পরিচালিত এবং পিঙ্কি পাল প্রযোজিত ছবিটিতে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের চরিত্রে অভিনয় করেছেন রুমা চক্রবর্তী। মধ্যবিত্ত পরিবার থেকে এক সাধারণ মেয়ের লড়াই করে বেড়ে ওঠার কাহিনী এই ছবি। রাজনৈতিক জীবনের দীর্ঘ ঘাত-প্রতিঘাত অতিক্রম করে রাজ্য শাসনের পুরোটাই উঠে এসেছে এই ছবিতে।

আরও পড়ুন-নির্বাচন কমিশনের কার্যালয়ে বিক্ষোভে বিজেপি! কিন্তু কেন ?

ছবিতে অবশ্য রুমাদেবীর চরিত্রটিতে সরাসরি মুখ্যমন্ত্রী বন্দ্যোপাধ্যায়ের নাম ব্যবহার করা হয়নি। পরিবর্তে নাম রাখা হয়েছে ইন্দিরা বন্দ্যোপাধ্যায় । ‘বাঘিনী’তে দেখা যাবে, দক্ষিণ কলকাতার এক নিম্ন মধ্যবিত্ত পরিবারের অতি সাধারণ মেয়ে ইন্দিরা। মা মৈত্রীদেবীর স্নেহ আর বাবা প্রমীলেশ্বর বন্দ্যোপাধ্যায়ের রাজনৈতিক ও মানবিক ছায়ায় তাঁর বেড়ে ওঠা। কলেজে পড়তে পড়তে ছাত্র রাজনীতিতে যোগদান করেন তিনি। সেখান থেকেই রাজনীতির মূলস্রোতে তাঁর প্রবেশ। নির্বাচনে দাঁড়ানো। জয়ী হয়ে বিধায়ক হিসেবে বিধানসভায় ইন্দিরার পা রাখা।

আরও পড়ুন-ফের প্রশ্নের মুখে কেন্দ্রীয় মন্ত্রী স্মৃতি ইরানির শিক্ষাগত যোগ্যতা!

কয়েক বছর পর তিনি বুঝতে পারেন অত্যাচারিত তৎকালীন শাসকদলের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়াতে হবে তাঁকেই। বাংলার মানুষের মুখে হাসি ফোটাতে হবে। আর এর জন্য প্রয়োজন একটা আলাদা মঞ্চের। আর সেখান থেকেই নতুন পথের যাত্রা শুরু হয় তাঁর। মায়ের আশীর্বাদ মাথায় নিয়ে নতুন দল গঠন করেন তিনি। মানুষের স্বার্থে দীর্ঘ লড়াই চালিয়ে যান ইন্দিরা। এবং শেষে তাঁর হাত ধরেই রাজ্যে ঘটে রাজনৈতিক পালাবদল। ইন্দিরার প্রতি বাংলার মানুষের ভরসা ও বিশ্বাসের প্রতিফলন স্বরূপ প্রথম মহিলা হিসেবে পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রীর আসনে বসেন তিনি। এইভাবেই এগিয়ে চলে ছবির সিকুয়েন্স। ভোট চলাকালীন এমন একটি ছবি মুক্তি একটা অন্যমাত্রা এনে দিয়েছে। প্রযোজক থেকে কলাকুশলী, প্রত্যেকেই আশাবাদী ছবিটি নিয়ে। প্রযোজক পিঙ্কি  পাল বলেন, “বাংলার অগ্নিকন্যাকে নিয়ে এই ছবি সকলের ভালো লাগবেই।”

আরও পড়ুন-গ্রেফতার উইকিলিকসের প্রতিষ্ঠাতা জুলিয়ান অ্যাসাঞ্জ