পাঁচ বছরে ডালুর বয়স বেড়েছে 2 বছর,খগেন মুর্মুর বাড়েইনি

এসবিবি: দক্ষিণ মালদহের কংগ্রেস প্রার্থী আবু হাসেম খান চৌধুরি (ডালু) এবং উত্তর মালদহের বিজেপি প্রার্থী খগেন মুর্মুর বয়স নিয়ে বিভ্রান্তি দেখা দিয়েছে। ডালুবাবুর 2014 এবং 2019 সালের হলফনামা পাশাপাশি রাখলে দেখা যাচ্ছে পাঁচ বছরে তাঁর বয়স বেড়েছে মাত্র 2 বছর। অন্যদিকে দেখা যাচ্ছে 5 বছরে খগেনবাবুর বয়সই বাড়েনি।
2014 সালে দক্ষিণ মালদহ লোকসভা কেন্দ্রের কংগ্রেস প্রার্থী হিসাবে ডালুবাবুর পেশ করা হলফনামায় বয়স উল্লেখ করা ছিল 70 বছর। এবছর 2 এপ্রিল তিনি মনোনয়নপত্রের সঙ্গে যে হলফনামা জমা দিয়েছেন সেখানে তাঁর বয়স উল্লেখ করা রয়েছে 72 বছর অর্থাৎ মাঝের পাঁচ বছরে ডালুবাবুর বয়স বেড়েছে দুই বছর!
আবার লোকসভার ওয়েবসাইটে 16তম লোকসভার সদস্যদের যে তথ্য দেওয়া রয়েছে সেখানে ডালুবাবুর জন্ম তারিখ হিসাবে উল্লেখ করা রয়েছে 12 জানুয়ারি, 1941। অর্থাৎ ওইটি প্রামাণ্য হিসেবে ধরলে ডালুবাবু 78 বছর পার করে 79 বছরে পা দিয়েছেন।
একই বিভ্রাট রয়েছে উত্তর মালদহের বিজেপি প্রার্থী খগেন মুর্মুর ক্ষেত্রেও। 2014 সালে এই কেন্দ্র থেকেই সিপিএম প্রার্থী হিসাবে লড়াই করেছিলেন তিনি। তখন হলফনামায় তাঁর বয়স ছিল 59 বছর। 2016 সালে হবিবপুর বিধানসভা কেন্দ্র থেকে সিপিএমের হয়ে লড়াই করে জয়ী হন খগেনবাবু। সেই হলফনামায় আবার তাঁর বয়স রয়েছে 56 বছর। অর্থাৎ দু’বছরে তাঁর বয়স কমে যায়। এবার আবার উত্তর মালদহ কেন্দ্র থেকে বিজেপি প্রার্থী হিসাবে লড়াই করছেন খগেনবাবু। এবারের পেশ করা হলফনামা অনুযায়ী, তাঁর বয়স 59 বছর। উল্লেখযোগ্য বিষয় হল, 2014 সালের লোকসভা নির্বাচনে লড়াই করার সময় পেশ করা হলফনামায় তাঁর জন্ম তারিখ উল্লেখ করেননি খগেন মুর্মু।