দেশে কর্মহীন 50 লক্ষ, বেকারত্ব বৃদ্ধি 6%, রিপোর্টে বিপাকে মোদি

এসবিবি : দেশে ভোটপর্ব শুরু হয়ে গিয়েছে। তার মাঝেই একটি রিপোর্ট কার্যত ‘পথে বসাতে’ চলেছে মোদি তথা বিজেপিকে।

আজিম প্রেমজি বিশ্ববিদ্যালয়ের সেন্টার ফর সাস্টেনেবল এমপ্লয়মেন্টের বা CSE-র এক রিপোর্টে বলা হয়েছে, গত 2 বছরে দেশে কাজ হারিয়েছেন প্রায় 50 লক্ষ মানুষ । ন্যাশনাল স্যাম্পেল সার্ভের রেকর্ড বেকারত্বের রিপোর্ট নিয়ে মোদি সরকারের বিরুদ্ধে আগেই সরব হয়েছিল বিরোধী পক্ষ। এবার গুরুত্বপূর্ণ CSE-র রিপোর্ট অনুযায়ী, 2016 ও 2018 সালের মধ্যে কাজ হারিয়েছেন প্রায় 50 লক্ষ মানুষ। কর্মসংস্থানের এই ঘাটতি শুরু হয় 2016-র নোটবন্দির পর থেকেই। তবে নোটবন্দির সঙ্গে কর্মসংস্থানে ঘাটতির মধ্যে প্রত্যক্ষ কোনও যোগসূত্রে আছে কি না তা এই রিপোর্টে স্পষ্ট করে বলা হয়নি ।

আরও পড়ুন-রাত পোহালেই উত্তরবঙ্গের তিন আকর্ষণীয় কেন্দ্রে ভোট গ্রহণ, তুঙ্গে প্রস্তুতি

দেশের লেবার মার্কেট বা প্রত্যক্ষ যোগানের বাজারের উপর কনজিউমার পিরামিড সার্ভের মাধ্যমে তথ্য সংগ্রহ করে এই পরিসংখ্যান প্রকাশ করা হয়েছে । প্রতি 4 মাসে প্রায় 1,60,000 বাড়িতে সমীক্ষা করা হয়েছে। সেই সব তথ্য যাচাই করার পরই এই রিপোর্ট প্রস্তুত হয়েছে। সামগ্রিক তথ্যে বলা হয়েছে 2018 সালে বেকারত্বের হার বৃদ্ধি পেয়েছে প্রায় 6% হারে । এই রিপোর্ট সামনে আসার পর নোবেলজয়ী আমেরিকান অর্থনীতিবিদ পল ক্রুগম্যান সংবাদমাধ্যমে জানিয়েছেন, নির্মাণক্ষেত্রে উৎপাদন ও প্রসারণ বৃদ্ধি না হলে ভারতে ভয়াবহ গণ-বেকারত্বের সৃষ্টি হবে। CSE রিপোর্টে বলা হয়েছে, কেন্দ্রীয় সরকার 2016-17 সালের লেবার ব্যুরো রিপোর্ট প্রকাশ করতেও ব্যর্থ হয়েছে। লোকসভা নির্বাচনের প্রচারে এই রিপোর্টটি বিরোধীদের ‘মোদি-হঠাও’ অভিযানে যে হাতিয়ার হচ্ছে, তা বলাই বাহুল্য।

আরও পড়ুন-টিকটক ডাউনলোডের ওপর নিষেধাজ্ঞা জারি কেন্দ্রের