কোনও বায়োপিকের সঙ্গে আমার সম্পর্ক নেই, মামলার হুমকি মমতার

এসবিবি : বেশ কিছুদিন ধরেই সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল একটি সিনেমার ট্রেলার। এই সিনেমাটি নাকি মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বায়োপিক। বলা হচ্ছে এমনই। নিজের ট্যুইটার হ্যাণ্ডেল থেকে ট্যুইট করে এই প্রথমবার সেই ছবির প্রসঙ্গে মুখ খুললেন মুখ্যমন্ত্রী।

আরও পড়ুন-বর্ধমানে মুখ্যমন্ত্রীর রোড শো, ভিড় সামলাতে নাজেহাল পুলিশ

ছবিটির নাম ‘বাঘিনী: বেঙ্গল টাইগ্রেস’। নাম এবং ট্রেলারের মাধ্যমে সোশ্যাল মিডিয়ায় বোঝানো হচ্ছে যে এই ছবিটি মুখ্যমন্ত্রী মমতার বায়োপিক। আগামী 3 মে ছবিটির মুক্তি পাওয়ার কথা। নির্বাচন বিধি বলছে,
ভোট প্রক্রিয়া চলাকালীন কোনও রাজনৈতিক নেতৃত্বের জীবনী সম্প্রচার করা যাবে না। এই বিধির ভিত্তিতেই আটকে গিয়েছে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির বায়োপিক এবং প্রধানমন্ত্রীর জীবন নিয়ে তৈরি ওয়েবসিরিজের স্ট্রিমিং। এর মধ্যেই মুক্তি পায় ‘বাঘিনী: বেঙ্গল টাইগ্রেস’ নামে একটি বাংলা ছবির ট্রেলার। এই ট্রেলারকে পরোক্ষে মমতা বায়োপিকের ট্রেলার বলেই প্রচার করা হচ্ছে।

আরও পড়ুন-আইনজীবীদের গাড়ি পার্কিং নিয়ে গোলমালের জেরে রণক্ষেত্র হাওড়া আদালত চত্বর

মঙ্গলবার নির্বাচন কমিশন ওই ট্রেলারটি সোশ্যাল মিডিয়া থেকে প্রত্যাহার করার নির্দেশ দিয়েছে। উপ-নির্বাচন কমিশনার সুদীপ জৈন বলেছেন, নির্বাচনের মাঝে এই ট্রেলার যাতে অনলাইনের কোথাও দেখা না যায় সেটা নিশ্চিত করতে জরুরি পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে। এসব ঘটনার প্রেক্ষিতেই বুধবার নিজের অফিসিয়াল টুইটার হ্যান্ডল থেকে ছবি প্রসঙ্গে একটি ট্যুইট করেছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। মমতার বক্তব্য ”এসব কী ভুলভাল কথা ছড়ানো হচ্ছে ? কোনও বায়োপিকের সঙ্গে আমার কোনও সম্পর্ক নেই। যদি কয়েকজন তরুণ কিছু গল্প জোগাড় করে নিজেদের মতো করে কিছু বানিয়ে থাকে, তবে সেটা তাদের ব্যাপার। তার সঙ্গে আমাদের কোনও সম্পর্ক নেই। আমি নরেন্দ্র মোদি নই। এ ধরনের মিথ্যা প্রচারের জন্য মানহানির মামলা করতে আমাকে বাধ্য করবেন না।”

আরও পড়ুন-বীরভূমের 100 শতাংশ বুথে কেন্দ্রীয় বাহিনী, জানালেন বিশেষ পর্যবেক্ষক

রীতিমতো হুমকির মেজাজেই মমতার এই বার্তা। সংশ্লিষ্ট সকলকে সম্ভবত তিনি বোঝাতে চেয়েছেন, এতদিন বিষয়টিকে গুরুত্ব দেননি মানে এই নয় যে কখনও দেবেন না। এই মিথ্যা প্রচার বন্ধ করতে প্রয়োজনে তিনি মানহানির মামলা করতেও তৈরি।

আরও পড়ুন-এখনও বাড়ি গেলে মা তাঁকে 100 টাকা দেন: অক্ষয় আড্ডায় অকপট মোদি