রবিবারের বাবুইবাসা : 19-05-19

।।ধারাবাহিক উপন্যাস।।

।। জননী ।।

নারায়ণ চন্দ্র দেবনাথ

 

প্রতাপ মনে মনে বলে, এই রে সর্বনাশ! ঘটনা যেদিকে এগোচ্ছে তাতে বিষয়টি একেবারে ভালো ঠেকছে না।বাবা বিচক্ষণ মানুষ, হয়তো তিনি ঠিকই বলেছেন। এখনিআমাকে সাবধান হতে হবে, নাহলে বিপদে পড়তে হবে।

প্রতাপকে চিন্তিত দেখে তিনি  বলেন, কী হল প্রতাপ! এত কী চিন্তা করছ ইয়াংম্যান? কিছু বলছ না যে! ও বুঝেছি, আমার বাড়িতে যাবে না, তাই তো? ঠিক আছে, যেওনা। আমি তোমার অ্যান্টিকে বলে দেব।

বিষয়টি দৃষ্টিকটু লাগছে দেখে প্রতাপ তখনি বলে, নানা , আমি কখন বললাম যে যাবো না! নিশ্চয়ই যাবো।তবে একটু সংকোচ হচ্ছে। আপনি হলেন আমাদের বস, আর আমি একজন সাধারণ কেরানি। আপনি হলেন বনস্পতি আর আমি হলাম গিয়ে লতা গুল্ম।

নিজেকে ছোটো মনে করা পাপ। কোন্‌দিকে তুমি কম আছো বলতো! আর কেরানি বলে কি তুমি মানুষ নও? অর্থ হলেই মানুষ বড়ো হয়ে যায় না। তোমার সততা, মানবিকতা, মনুষ্যত্বই তোমার আসল পরিচয়। এই সম্পদগুলি যদি তোমার থাকেতা হলে পৃথিবীর যে কোন ধনী মানুষের চেয়েও তুমি নিজেকে ধনী বলে মনে করতে পারো।

তাছাড়া তুমি কি তোমার বসের বাড়িতে যাচ্ছ নাকি? তুমি যাবে তোমার আঙ্কেলের বাড়ি। ব্যাস। তুমি খাঁটি বাঙালি আর আমি প্রবাসী বাঙালি – এই যা পার্থক্য। প্রবাসে থাকলেও আমাদের মধ্যে বাঙালিয়ানার কোন খামতি যে নেই তা আমার বাড়িতে গেলেই বুঝতে পারবে। বাংলাতে এখনো উঁচু-নীচু, ছোটো-বড়ো, জাত-পাত এসব র‍য়ে গেছে না? আমি না এসব একেবারে টলারেট করতে পারি না।

না, মানে একটা কথা জিজ্ঞাসা করব স্যার?

আবার স্যার? এখন তুমি আর আমি একান্তে কথা বলছি। এখন স্যার নয়।বলো কী বলবে?

বলছিলাম কী স্যার; ওথুড়ি, আঙ্কেল। প্রথম প্রথম তো তাই সব উল্টোপাল্টা হয়ে যাচ্ছে।আস্তে আস্তে সব ঠিক হয়ে যাবে। শিশু যখন প্রথম ‘মা’ ডাক শেখে তখন তোমাকে সামনে পায় তাকে ইমা বলে ডাকে, তাই না আঙ্কেল! শিশু যেমন প্রথম প্রথম ভুল করে আমার ওতে মনি প্রথমে একটু ভুল হচ্ছে। দয়া করে আমাকে ক্ষমা করে দেবেন, স্যার, ও না মানে আঙ্কেল! বলছিলাম আপনার বাড়িতে আর কেউ নেই? মানে আপনার বাবা মা কিংবা আর কেউ!

কেন থাকবে না? আমার অশীতিপর বাবা আছেন, আমার একমাত্র মেয়ে আছে। তবে আমার মানেই। ছোটোবেলাতে ইমা কে হারিয়েছি। বাবা আমাকে আর বোনকে অনেক কষ্ট করে মানুষ করেছেন। তবে বাবাকে দেখলে মনে হবেনা যে, তাঁর আশির উপরে বয়েস হয়েছে। বাবা স্বাধীনতা সংগ্রামী। বার চারেক জেল খেটেছেন। খুব বিচক্ষণ মানুষ। আমি এখনো কোন সমস্যায় পড়লে বাবার শরণাপন্ন হই।

ঠিক আছে আঙ্কেল, আপনার বাড়িআমি যাবো।নিশ্চয়ই যাবো। যদি পারিতো আগামী রবিবার।

মলয়বাবু চলে গেলে প্রতাপ ভাবে, বাবা ঠিকই বলেছেন।বসের মেয়েআছে, হয়তো তার জন্যই এত তাঁদের আদর আপ্যায়ন, বাড়ি যাওয়ার জন্য পীড়াপীড়ি। আবার ভাবেনাও তো হতে পারে। সব মানুষ কি একরকম হয়? আর বাঙালি হলেও বাঙালি কালচার এঁদেরনেই, অন্তত মানসিকতার দিক থেকে। একদিন যাওয়া যাক। দেখাই যাক না আমার অদৃষ্টে কী আছে!

(পরবর্তী অংশ পরের সপ্তাহে)

#############################################