‘অন্য’ প্রেমের ভিত্তি হোক ‘অচিন পাখি’

এসবিবি : এ এক অন্য ভালবাসার গল্প। তথাকথিত প্রেমের উর্ধ্বে। শুধু প্রতিশ্রুতির দিক থেকে নয়, প্রতিকূলতাকে হার মানানোর গল্প। একটি ছেলে বা একটি মেয়ের মধ্যে তৈরি হওয়া স্বাভাবিক প্রেমের গল্প নয় এটি। এখানে দু’জনই পুরুষ। সমাজে বহু প্রতিকূলতা, বহু বাধা। এরই মধ্যে একজন জানতে পারে অপরজন মারণরোগ এডসে আক্রান্ত। নিজের অসুস্থতার কথা জানতে পেরে সঙ্গীর কাছে থেকে সরে যেতে চাই সে। কিন্তু এটাই বোধহয় ভালবাসা। সঙ্গীর এই রোগের কথ জেনেও এক মুহূর্তের জন্যও তাঁকে দূরে না সরিয়ে আরও আঁকড়ে ধরে। ভালবাসার সুতো যেন আরও মজবুত হয়।

 

আরও পড়ুন- বিজেপিতে যোগদান করছেন তৃণমূল বিধায়ক সুনীল সিং! শাসকের হাতছাড়া গারুলিয়া পুরসভা?

তবে এই প্রেম বাস্তব নয়, পর্দায়। এমনই এক প্রেক্ষাপটকে স্বল্পদৈর্ঘ্যের একটি ছবিতে ধরেছেন পরিচালক সৈকত দাস। ছবির নাম ‘অচিন পাখি’।
নন্দনে হলো এই ছবিরই স্পেশাল স্ক্রিনিং। এমন একটি সাবজেক্টের ওপর তৈরি হওয়া ছবি যে প্রশংসার শিখরে পৌঁছবে তা বলার অপেক্ষা রাখে না। জাতীয় পুরস্কারপ্রাপ্ত টলিউডের প্রথমসারির অভিনেত্রী ঋতুপর্ণা সেনগুপ্ত ছবিটির প্রশংসা করেন। ভবিষ্যতেও সমাজে এমন ছবির প্রয়োজন বলেও জানান তিনি।
এমন একটি সাবজেক্ট নিয়ে ছবি করার কথা মাথায় এল কীভাবে? পরিচালক সৈকত দাসের জবাব, “প্রেম তো একপ্রকার হয় না। তার নানা দিক। সমাজের একটি অন্য প্রেমকে নিয়ে চিন্তাভাবনা আমি বহুদিন থেকেই করছিলাম। এটিই সেরা বিষয় বলে আমার মনে হল।” পরিচালক বলেন, “ছবি তৈরির পর লিঙ্কটি ঋতুপর্ণা সেনগুপ্তকে পাঠাই। উনি ভীষণ অ্যাপ্রিশিয়েট করেছেন।”
স্পেশাল স্ক্রিনিংয়ে অভিনেত্রী ঋতুপর্ণা সেনগুপ্তর পাশাপাশি উপস্থিত ছিলেন সুপ্রিম কোর্টের বিশিষ্ট আইনজীবী জয়দীপ মুখোপাধ্যায়, প্রাক্তন বিচারপতি অরুণাভ বড়ুয়া, আনন্দ পুরস্কারপ্রাপ্ত বিশিষ্ট লেখিকা সঙ্গীতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

আরও পড়ুন- ধোনির স্বপ্ন পূরণ হল না