KIFF-এর সব পদ থেকে সরে গেলেন অভিনেতা প্রসেনজিৎ

কলকাতা আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসবের বা KIFF-এর সব ক’টি কমিটির সদস্যপদ থেকে সরে গেলেন প্রসেনজিৎ চট্টোপাধ্যায়। চেয়ারম্যান পদ থেকে অপসারণের জেরেই তাঁর এই সিদ্ধান্ত বলে টালিগঞ্জ পাড়ার গুঞ্জন।

দু’দিন আগেই রদবদল হয়েছে চলচ্চিত্র উৎসব কমিটিতে। প্রসেনজিৎ চট্টোপাধ্যায়কে সরিয়ে চেয়ারম্যান পদে এসেছেন পরিচালক রাজ চক্রবর্তী। রাজ্যের তথ্য ও সম্প্রচার দপ্তর এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে প্রসেনজিতের অপসারণের খবর জানায়। তারপরই কলকাতা আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসবের যাবতীয় কমিটি থেকে প্রসেনজিতের সরে দাঁড়ালেন। জল্পনা চলছে, এই সিদ্ধান্তের নেপথ্যে রাজনীতির সম্পর্ক রয়েছে। প্রসেনজিৎ বলেছেন,
“আমি রাজকে বলে দিয়েছি যে এবছর কলকাতা ইন্টারন্যাশনাল ফিল্ম ফেস্টিভ্যাল কমিটির কোনও কাজে অফিশিয়ালি আমি যুক্ত থাকতে পারব না।” প্রসঙ্গত,গত 10 বছর ধরে চলচ্চিত্র উৎসবের সঙ্গে যুক্ত ছিলেন প্রসেনজিৎ। কিছুদিন আগেও তিনি বলেছিলেন, “কলকাতা ইন্টারন্যাশনাল ফিল্ম ফেস্টিভ্যাল থেকে আমায় কেউ আলাদা করতে পারবে না। আমি গত 10 বছর ধরে কমিটির সদস্য ছিলাম। আমি ওদের সঙ্গে রয়েছি, থাকবও। আমাকে চেয়ারম্যান পদ থেকে সরাতে হলে সম্মানের সঙ্গে সরানো হোক।” তাঁর এই সিদ্ধান্তের কথা ইতিমধ্যেই লিখিতভাবে জানিয়ে দিয়েছেন রাজ্য সরকারকে। চেয়ারম্যান পদ থেকে অপসারণের পর প্রসেনজিতকে KIFF-এর বিশেষ উপদেষ্টা কমিটিতে রাখা হয়েছিলো।কোন কারনে তিনি KIFF-এর সঙ্গে সম্পর্ক ছিন্ন করতে চাইছেন? অভিনেতার বক্তব্য, ব্যক্তিগত কাজে ব্যস্ত থাকার জন্য কমিটির দায়িত্বভার সামলাতে তাঁর অসুবিধে হচ্ছিল। আর সেই জন্যই এর আগে কমিটির বেশ কিছু মিটিংয়ে উপস্থিত থাকতে পারেননি তিনি। সময়ের অভাবই তাঁর এই সিদ্ধান্তের একমাত্র কারণ।

দিন কয়েক আগে ED সারদা মামলায় অভিনেতাকে তলব করেছিলো। তখনই শোনা গিয়েছিল যে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গে তাঁর সম্পর্ক খুব একটা ভালো নেই। দিল্লি যাওয়ার পথে মুকুল রায়ের সঙ্গে তাঁর সাক্ষাৎ হওয়া নিয়েও বেশ জল্পনার সৃষ্টি হয়েছিল ইন্ডাস্ট্রিতে। প্রসেনজিৎ এবার বিজেপিতে যোগ দিচ্ছেন এমন কথাও শোনা যাচ্ছে।