দুর্গাপুজো হবে করমুক্ত : দাবি মমতার, পথে নামছে তৃণমূল

পুজো হবে করমুক্ত। পুজো কমিটিগুলিকে আয়কর দফতরের নোটিশ দেওয়ার বিরুদ্ধে এবার তাই পথে নামছে তৃণমূল। রবিবার দুপুরে তিন তিনটি টুইট করে পুজো কিমিটিগুলির উপর আয়কর বিভাগের নজরদারির বিরুদ্ধে তোপ দেগেছেন মুখ্যমন্ত্রী তথা তৃণমূলনেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। সেখানেই তিনি জানিয়েছেন, আগামী মঙ্গলবার অর্থাৎ 13 অগস্ট কলকাতার সুবোধ মল্লিক স্কোয়্যারে অবস্থান বিক্ষোভে সামিল হবে তৃণমূলের বঙ্গ জননী ব্রিগেড।

আরও পড়ুন-24 ঘন্টার মধ্যে নিষেধাজ্ঞা বলবৎ শ্রীনগরে

ওই টুইটে তৃণমূলনেত্রী লিখেছেন, “এই উৎসব সবার উৎসব। আমরা চাই না এটা করের আওতায় আসুক। তাহলে উদ্যোক্তাদের নানান বাধার মুখে পড়তে হবে।” তিনি আরবও বলেন, “আগে গঙ্গাসাগর মেলায় রাজ্যসরকার কর আদায় করত। কিন্তু আমরা তা বন্ধ করে দিয়েছি।” ‘করমুক্ত’ দুর্গাপুজোর দাবি জানিয়েছেন মমতা।

গত জানুয়ারি মাসেই কলকাতার প্রায় 40টি পুজো কমিটিকে ডেকে আয়কর কর্তারা বলে দেন, এ বছরের পুজো থেকে তিরিশ হাজার টাকার উর্ধ্বে সমস্ত রকম পাওনা মেটানোর ক্ষেত্রে টিডিএস কেটে নিতে হবে। এবং তা আয়কর দফতরে জমা দিতে হবে। জানুয়ারি মাসে যে দিন পুজো কমিটিগুলিকে ডেকে এ কথা বলছে আয়কর দফতর, সেদিনই বারাসতে যাত্রা উৎসবের উদ্বোধনে গিয়ে মুখ্যমন্ত্রী বলেছিলেন, “পুজো কমিটির থেকে ইনকাম ট্যাক্স রিটার্ন চাওয়া হচ্ছে। একটা ক্লাবের গায়ে হাত লাগলেও ছেড়ে কথা বলব না। আমি সব ক্লাবকে বলে দেব, ডাকলে একদম যাবেন না।”

পর্যবেক্ষকদের অনেকের মতে, কলকাতা ও শহরতলির অধিকাংশ পুজোর মাথাই তৃণমূলের নেতামন্ত্রীরা। সুরুচি সঙ্ঘ থেকে নাকতলা উদয়ন সঙ্ঘ, ত্রিধারা সম্মিলনী থেকে শ্রীভূমি স্পোর্টিং—সব পুজোই তৃণমূল নেতাদের পুজো বলেই জনমানসে পরিচিত। তাই তাঁদের পাশে দাঁড়াতেই দলকে নামাচ্ছেন নেত্রী।

আরও পড়ুন-কর্নাটকে বন্যা পরিস্থিতি খতিয়ে দেখলেন অমিত শাহ