‘ধর্মীয় ভাবাবেগকে আহত করছে আয়কর নোটিশ’, বিজেপিকে তোপ সাংসদ কাকলি’র

“দুর্গাপুজোয় বিঘ্ন ঘটাতে আয়কর দফতরকে কাজে লাগিয়ে বিজেপি কার্যত আঘাত হানছে হিন্দু ধর্মের ভাবাবেগেই”।
আয়কর দপ্তরের বিরুদ্ধে তৃণমূলের ‘বঙ্গজননী’ শাখার ধরনা-মঞ্চে মঙ্গলবার এ কথা বললেন সাংসদ কাকলি ঘোষদস্তিদার। তৃণমূল কংগ্রেসের ‘বঙ্গজননী’ শাখার চেয়ারপার্সন কাকলিদেবী বলেন, ” এ রাজ্যের দুর্গাপুজো নিয়েও কেন্দ্রীয় সরকার রাজনীতি করছে। রাজ্যের পুজো কমিটিগুলিতে বিজেপি’র নিয়ন্ত্রণ নিশ্চিত করতেই বাঙালির শ্রেষ্ঠ উৎসব দুর্গাপুজোকেই অনিশ্চিত করা হচ্ছে। সেই লক্ষ্যেই আয়কর দপ্তরকে কাজে লাগানো হচ্ছে।”

আরও পড়ুন-370 ধারা নিয়ে সরব এবার মনমোহন সিং

আয়কর দপ্তরের সিদ্ধান্তে তোপ দেগে মঙ্গলবার সকাল 10টা থেকে সুবোধ মল্লিক স্কোয়ারের কাছে ধর্নায় বসেছে তৃণমূলের বঙ্গজননী শাখা।ধর্নায় বসেই আয়কর দপ্তরের বিরুদ্ধে ধর্মীয় ভাবাবেগে আঘাতের গুরুতর অভিযোগ এনেছেন কাকলি ঘোষ দস্তিদার।
রাজ্যের স্বাস্থ্যপ্রতিমন্ত্রী চন্দ্রিমা ভটাচার্য বলেছেন, “দুর্গাপুজোয় কর চাওয়ার কোনও অধিকার আয়কর দপ্তরের নেই। সম্পূর্ণ বেআইনি ভাবে রাজ্যের পুজো কমিটি থেকে কর চাইছে আয়কর দপ্তর।
কর দেওয়ার নির্দেশ কখনই তৃণমূল কংগ্রেস মানবে না”।

এদিন সকাল থেকেই ধর্নামঞ্চে ছিলেন তৃণমূল কংগ্রেসের ‘বঙ্গজননী’ শাখার চেয়ারপার্সন কাকলি ঘোষদস্তিদার, মন্ত্রী চন্দ্রিমা ভটাচার্য, শশী পাঁজা, বিধায়ক নয়না বন্দ্যোপাধ্যায় সহ তৃণমূলের নেত্রীরা।

অন্যদিকে তৃণমূলের এই ধর্নাকে তীব্র কটাক্ষ করেছেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ। তিনি বলেছেন, “অনেক পুজো কমিটিতে চিটফান্ডের টাকা ঢুকেছে। আয়কর দপ্তর তার তদন্তেই নেমেছে”। তিনি বলেছেন, তৃণমূলের নেতারা দুর্গাপুজোর সময় বিপুল পরিমান কালো টাকা সাদা করেন।তাই আয়কর দপ্তরের সক্রিয়তায় তৃণমূল ভয় পাচ্ছে।”

আরও পড়ুন-পুজোয় আয়কর নোটিশ ব্যুমেরাং হওয়ায় সুর নরম বিজেপির