দীর্ঘ টালবাহানার পর পোলেরহাট-2 গ্রাম পঞ্চায়েতে বোর্ড গঠন, রাশ থাকলো আরাবুলের হাতেই!

দীর্ঘ টালবাহানার পর চাপা উত্তেজনার মধ্যে ভাঙড়-2 ব্লকের পোলেরহাট-2 পঞ্চায়েতে বোর্ড গঠিত হল। আদালতের নির্দেশেই গঠিত হলো বোর্ড। প্রধান নির্বাচিত হয়েছেন সবিতা সর্দার। উপপ্রধান আরাবুল ইসলাম পুত্র হাকিমুল ইসলাম। এদিন বোর্ড গঠনকে কেন্দ্র করে বড়সড় অশান্তির আশঙ্কা ছিল। তার জেরে বুধবার সকাল থেকে বিশাল পুলিশ বাহিনী মোতায়েন করা হয় এলাকায়। তবে এখনও পর্যন্ত কোনও অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটেনি বলেই খবর।

এদিকে, বোর্ডে আরাবুল না থাকলেও, তাঁর ছেলে হাকিমুলের থাকা নিয়েও ক্ষুব্ধ গ্রামবাসীরা। জমি রক্ষা কমিটির প্রস্তাব অনুযায়ী, তৃপ্তি বিশ্বাস প্রথমে পঞ্চায়েত প্রধান হতে রাজি হলেও এখন বেঁকে বসেছেন তিনিও। অভিযোগ, তৃপ্তি বিশ্বাসের ওপর চাপ তৈরি করা হয়েছে, তাই তিনি প্রধান হতে চাইছেন না। বোর্ডে আরাবুল ইসলামের ছেলে হাকিমুলকে রাখা যাবে না বলেও দাবি করে জমি রক্ষা কমিটি। এক্ষেত্রে কমিটি প্রধান হিসাবে তৃপ্তি বিশ্বাস নামে তৃণমূলেরই একজনের নাম প্রস্তাব করা হয়েছিল প্রথমে।

আরও পড়ুন-স্বাধীনতা দিবসের অনুষ্ঠান সরাসরি দেখতে চান? যে কোনও একটা লিঙ্ক ব্যবহার করুন

আর এই নিয়ে সকাল থেকেই উত্তেজনা ছিল ভাঙড়ে। সকাল থেকেই ভাঙড়ে স্লোগান উঠেছিল আরাবুলের নেতৃত্বে বোর্ড কিছুতেই মানা হবে না। এমনকি রাস্তায় বসে পড়ে বিক্ষোভ দেখাতে থাকেন জমি রক্ষা কমিটির সদস্যরা। বিক্ষোভে সামিল হন মহিলারাও।

গণ্ডগোলের আশঙ্কায় এলাকায় জারি করা হয় 144 ধারা। মোতায়েন করা হয়েছে প্রায় 800 পুলিশ। পঞ্চায়েত সংলগ্ন প্রায় দুশো মিটার 25 টি সিসি ক্যামেরা লাগানো হয়েছিলো।

উল্লেখ্য, 2018 সালের নির্বাচনে এই পঞ্চায়েতে 16টি আসনের মধ্যে পাঁচটি আসনে জয়ী হয় জমি রক্ষা কমিটি। সেইসময়ই এলাকায় শান্তি রাখার আবেদন নিয়ে জেলাশাসকের কাছে দরবার করা হয়। স্থায়ী বোর্ড গঠন না করে প্রশাসন দিয়ে পঞ্চায়েত চালানোর সিদ্ধান্ত নেয় সরকার। গত 19 মে প্রশাসন দিয়ে পঞ্চায়েত চালানোর মেয়াদ শেষ হয়েছে। 25 জুন বোর্ড গঠনের বিজ্ঞপ্তি দেয় সরকার। এরপরই আদালতের দ্বারস্থ হয় জমি রক্ষা কমিটি। এরপর বোর্ড গঠনের নির্দেশ দেয় হাইকোর্টের ডিভিশন বেঞ্চ।

আরও পড়ুন-চিতার আতঙ্কে ঘুম ছুটেছে এলাকাবাসীর! কোথায় জানেন?